ঢাকা   রবিবার ১৬ জুন ২০১৯ | ২ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  নাটোরে হত্যা মামলার সাক্ষীকে কুপিয়ে হত্যা (জেলার খবর)        উগ্র সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণ না করলে উন্নয়ন থমকে যাবে: মেয়র খোকন (ঢাকা)        শিক্ষার উন্নয়নে সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব শিক্ষামন্ত্রীর (শিক্ষা)         ওসি মোয়াজ্জেমের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে পৌঁছেছে (জেলার খবর)        ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ (জাতীয়)        বাজেট দিতে হাসপাতাল থেকেই সংসদে গেলেন অসুস্থ অর্থমন্ত্রী (জাতীয়)        চট্টগ্রামে কৃত্রিম পরিবেশে জন্মালো ২৬টি অজগর ছানা (চট্রগ্রাম)        শেখ হাসিনার নির্বাচিত উক্তি নিয়ে দু’টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন (জাতীয়)        রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু না হওয়ায় জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগ (জাতীয়)         বেনাপোলে একদিনে রেকর্ড পরিমাণ আমদানি পণ্যের চালান (জেলার খবর)      

ডাকসু নির্বাচন: ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নুরুর ওপর হামলা

Logo Missing
প্রকাশিত: 07:55:13 pm, 2019-03-11 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আজ ডেক্সঃ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে কোটা সংস্কার আন্দোলনের (বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ) প্যানেলের সহসভাপতি (ভিপি) প্রার্থী নুরুুল হক নুরুসহ তিন প্রার্থী আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদে সাধারণ সম্পাদক (জিএস) প্রার্থী রাশেদ খান বলেন, রোকেয়া হলে ভোট কারচুপি হচ্ছেÑএমন অভিযোগ পেয়ে নুরু এবং অন্য বিরোধী প্রার্থীরা সেখানে যান। হলের শিক্ষার্থীরা একটি কক্ষ ঘেরাও করে রাখেন। তাঁদের অভিযোগ, সেখানে তিনটি ব্যালট বাক্স আগে থেকে ভরে রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে শিক্ষক ও নির্বাচনী কর্তৃপক্ষের কাছে ব্যাখ্যা চাইতে গেলে ছাত্রলীগের হামলার শিকার হন নুরু ও তাঁর সঙ্গে থাকা দুই প্রার্থী। গতকাল সোমবার ভোট চলাকালে রোকেয়া হলের ছাত্রলীগ কর্মীদের কয়েকজন তাদের ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন জিএস প্রার্থী রাশেদ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, যে কক্ষে ব্যালট বাক্স রাখা হয়েছে, সেখানে প্রবেশ করেন ছাত্রলীগ মনোনীত সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদের ভিপি প্রার্থী রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, জিএস প্রার্থী গোলাম রাব্বানী, ছাত্রদলের জিএস প্রার্থী আনিসুর রহমান খন্দকার অনিক ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ প্যানেলের ভিপি প্রার্থী নুরুুল হক নুরু। কক্ষটি দেখে ছাত্রলীগের নেতারা কোনো সমস্যা নেই বলে মন্তব্য করেন। কিন্তু ছাত্রদলের অনিক জানান, বাক্স সিলগালা নেই। তখন নুরু কথা বলতে গেলে তাঁকে মারধর করা হয়। এতে তিনি আহত হয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়লে তৎক্ষণাৎ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে শিক্ষার্থীরা হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. জিনাত হুদার পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। তাঁদের বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে রোকেয়া হলে ভোট বন্ধ হয়ে যায়। নুরুুল হক নুরুসহ অন্য আহতরা হলেন স্বতন্ত্র জোটের ভিপি প্রার্থী অরণী সেমন্তি খান ও শ্রাবণী শফিক দীপ্তি। এদিকে হামলা ও মারধরের পর অজ্ঞান হয়ে পড়েন নুরুুল হক নুরু। ডাকসু এবং হল সংসদের নির্বাচনে বেগম রোকেয়া হল ভোটকেন্দ্র থেকে তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে ফেলার অভিযোগ করেছেন প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা। এ অভিযোগে বিক্ষোভের মুখে সকালে প্রায় এক ঘণ্টা পর ভোট গ্রহণ শুরু হয় এই হলে। ছাত্রদল, বাম জোট ও সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলনের একাধিক প্রার্থী অভিযোগ করেন, রোকেয়া হলে গায়েব হওয়া তিনটি ব্যালট বাক্স সরিয়ে ফেলেছে ছাত্রলীগ।

Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!