ঢাকা   ২৭ মে ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে ৬শ অসহায় পরিবারকে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ (জামালপুরের খবর)        জামালপুরবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই: আশরাফুল ইসলাম বুলবুল (জামালপুরের খবর)        করোনা দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের সমস্যা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন-মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)        গন্তব্যে পৌছবে কি ছানুর নৌকা (জামালপুরের খবর)        বেতন ও বোনাসের টাকায় ঈদ সামগ্রী নিয়ে দেড়শ মধ্যবিত্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন কিরন আলী (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ভাগ্য বিড়ম্বিত শিশুদের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে তরুনদের সহায়তায় দুইশত পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ময়মনসিংহে ৩শ দরিদ্র পরিবারের মাঝে সেনা প্রধানের ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন আর্টডক সদস্যরা (ময়মনসিংহ)        করোনা যোদ্ধা নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী দাস শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন (ময়মনসিংহ)        বিদ্যানদীর মত সকল সামাজিক সংগঠন যদি এই দুর্যোগের সময়ে এগিয়ে আসে তবে সরকারের উপর চাপ অনেকংশে কমে যাবে -মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)      

শিডিউল বিপর্যয় ঠেকাতে পারছে না রেলওয়ে

Logo Missing
প্রকাশিত: 12:18:35 am, 2019-06-03 |  দেখা হয়েছে: 3 বার।

আজ ডেক্সঃ ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় ঠেকাতে পারছে না বাংলাদেশ রেলওয়ে। ঈদযাত্রার শুরুর দিন থেকেই বেশ কয়েকটি ট্রেন শিডিউল বিপর্যয়ে পড়ে। ঝড়বৃষ্টিসহ নানা করণে নির্ধারিত গন্তব্য থেকে ট্রেনগুলো কমলাপুর স্টেশনে ফিরে আসতে দেরি করে। ফলে কমলাপুর থেকেও বিভিন্ন গন্তব্যে ট্রেন ছাড়তে দেরি হচ্ছে। খুব দ্রুতই শিডিউল বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠা যাবে বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ। তবে এ নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন যাত্রীরা। গতকাল রোববার কমলাপুরে গিয়ে দেখা গেছে, যে ট্রেনটি স্টেশন থেকে সকাল ৬টায় রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার কথা, সেটি সকাল ৯টার পরেও স্টেশনের ২ নম্বর প্লাটফর্মে দাঁড়িয়ে ছিল। পরে প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা দেরিতে সকাল সাড়ে ৯টায় ট্রেনটি রাজশাহীর উদ্দেশে ছেড়ে যায়। অন্যদিকে, চীলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি সকাল ৮টায় কমলাপুর ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ১১টা ৫০ মিনিটে স্টেশন ত্যাগ করে। এছাড়া, খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস সকাল ৬টা ২০ মিনিটে ছাড়ার কথা থাকলেও তা ছেড়েছে সকাল ৮টায়। গত ২৪ মে যারা দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষার পর কাক্সিক্ষত টিকিট হাতে পেয়েছিলেন, ঘরমুখো সেসব মানুষ গতকাল রোববার সকালে পরিবার নিয়ে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যাচ্ছেন ঈদ উদযাপন করতে। ট্রেনের এই বিলম্বের কারণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন যাত্রীরা। গত ২৪ মে ১৪ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে আজকের (২ জুন) টিকিট কিনেছিলেন সাজেদা বেগম। তিনি বলেন, ‘এত কষ্ট করে টিকিট কেনার পর যাত্রার সময়ও যদি ভোগান্তি পোহাতে হয়, এটা দুঃখজনক। কর্তৃপক্ষ আন্তরিক হলে এমন হতো না।’ এ বিষয়ে কমলাপুর স্টেশনের ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, ‘যে ট্রেনগুলো দেরিতে এসে কমলাপুরে পৌঁছেছে, সেগুলো ছাড়তে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। তবে বেশিরভাগ ট্রেনই যথাসময়ে ছেড়ে গেছে। আমরা চেষ্টা করছি, সব ট্রেন যেন যথাসময়ে ছেড়ে যেতে পারে। সব মিলিয়ে যাত্রীদের ভোগান্তি নিরসনে সার্বিক সহযোগিতার চেষ্টা করছি আমরা।’