ঢাকা   মঙ্গলবার ২০ অগাস্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  অবসরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া (বিবিধ)        খুলনা রেলওয়ে থানায় নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ, তদন্তে কমিটি (খুলনা)        গাজীপুরে মশার ২৫ টন ওষুধ আমদানি করা হয়েছে: মেয়র জাহাঙ্গীর (জেলার খবর)        ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে দুই হাজারের বেশি ডেঙ্গু রোগী (জাতীয়)        কুষ্টিয়ায় মাদক মামলায় একজনের যাবজ্জীবন (জেলার খবর)        ফের হাইকোর্ট ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন আবেদন (আইন ও বিচার)        আগামী বছর থেকে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা হবে: কৃষিমন্ত্রী (কৃষি ও প্রকৃতি)        দেশের সব ক্ষেত্রে সমন্বিত উন্নয়ন হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী (জাতীয়)        দুর্নীতির মামলায় নোয়াখালী জেলা জজ আদালতের নাজির গ্রেফতার (জেলার খবর)        খালেদার ২ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি ১ সেপ্টেম্বর (আইন ও বিচার)      

দিনাজপুরে বিপৎসীমার কাছাকাছি ৩ নদীর পানি

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:58:28 pm, 2019-07-15 |  দেখা হয়েছে: 9 বার।

আজ ডেক্সঃ দিনাজপুরে তিন নদীর পানি বেড়ে বিপৎসীমার খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে। দুপুরের মধ্যে বিপৎসীমা পার করতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। পানি বাড়ার ফলে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছে, ডুবে গেছে নতুন আমন ধানের চারা। দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের সার্ভেয়ার মো. মাহাবুব আলম জানান, জেলার প্রধান ৩টি নদীর পানি বিপৎসীমার খুব কাছাকাছি অবস্থান করছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে দিনের মধ্যে বিপৎসীমা অতিক্রম করতে পারে। দিনাজপুর শহরের পাশ দিয়ে প্রবাহিত পুনর্ভবা নদীর ৩৩ দশমিক ৫০০ মিটার বিপৎসীমার বিপরীতে বর্তমানে পানির স্তর রয়েছে ৩২ দশমিক ২০০ মিটার। আত্রাই নদীর ৩৯ দশমিক ৬৫০ মিটারের বিপৎসীমার বিপরীতে বর্তমানে ৩৯ দশমিক ৩৭০ মিটার ও ছোট যমুনা নদীর ২৯ দশমিক ৯৫০ বিপৎসীমার বিপরীতে ২৮ দশমিক ৪০০০ মিটারে অবস্থান করছে। সরেজমিনে দেখা গেছে, রাতের মধ্যে নদীগুলোর পানি অস্বাভাবিক বেড়েছে। শহরের মাঝাডাঙ্গা, উত্তর খালপাড়া ও পশ্চিম খালপাড়ার কিছুকিছু বাড়িতে পানি প্রবেশ করেছে। প্রায় ৩ শতাধিক পরিবারের ১ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব পরিবারের মধ্যে দেখা গেছে খাদ্য ও বাসস্থানের সংকট। অনেকে নিজ বাড়ি থেকে শহর রক্ষা বাঁধের ওপর আশ্রয় নিয়েছেন। অব্যাহত পানি বাড়ার ফলে মাঝাডাঙ্গা গ্রামের বেশিরভাগ নতুন আমন ধানের জমি ডুবে গেছে। পুনর্ভবা নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে জেলার বিরল উপজেলার ১২ নম্বর রাজারামপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রায় ৫০০ পরিবারের ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এছাড়াও জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি গ্রামের কয়েক শতাধিক মানুষ ও চিরিরবন্দর উপজেলার গুচ্ছগ্রাম প্রকল্পের ১টি গ্রামের প্রায় ১৩০টি বাড়িতে পানি উঠেছে। সেখানকার প্রায় ৫০০ শতাধিক মানুষ পার্শ্ববর্তী একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। দিনাজপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. মোখলেসুর রহমান জানান, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বন্যা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ সম্পর্কে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।