ঢাকা   রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৩১ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  আজ রাজশাহী যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী (জাতীয়)        দেশে এসেছে ড্রিমলাইনার - রাজহংস (জাতীয়)        জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে (জামালপুরের খবর)        দেওয়ানগঞ্জে বিপুল পরিমান ইয়াবাসহ একজন আটক (জামালপুরের খবর)        কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বকশিগঞ্জ মাদারের চর গুচ্ছগ্রাম বসবাসে অনুপযোগী, মানুষের ঘরে বাস করছে গরু ছাগল (জামালপুরের খবর)        সৃষ্টি সেন্ট্রাল পরিবারের আয়োজনে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা (জামালপুরের খবর)        আইডিয়াল মেডিকেল ট্রেনিং সেন্টারের শিক্ষার্থীদের বিদায় ও নবীণবরণ অনুষ্ঠিত (জামালপুরের খবর)        ধনবাড়ীতে প্রতিবন্ধি ও অটিস্টিক স্কুলের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা (জেলার খবর)        শেরপুরে প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত (জেলার খবর)        মোসাদ্দেক-আফিফে টাইগারদের স্বস্তির জয় (ক্রিকেট)      

অবসরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:48:57 pm, 2019-08-05 |  দেখা হয়েছে: 3 বার।

আজ ডেক্সঃ ৩২ বছরের চাকরি জীবনের পর আগামী ১৩ অগাস্ট অবসরে যাচ্ছেন চার বছর ধরে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত আইজিপি পদমর্যাদার কর্মকর্তা মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। ডিএমপি কর্মকর্তারা জানান, অবসরে যাওয়ার আগে কয়েকটি দিন বিদায়ী নানা কর্মসূচিতে ব্যস্ত থাকবেন আছাদুজ্জামান মিয়া। গতকাল সোমবার পুলিশের পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টের (পিওএম) এক অনুষ্ঠানে যোগ দেন আছাদুজ্জামান মিয়া। মঙ্গলবার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে এক অনুষ্ঠানে তিনি যোগ দিবেন। বৃহস্পতিবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়ে আসবেন গুলশান হামলাসহ গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি ঘটনার সময় রাজধানীতে পুলিশের মূল দায়িত্বে থাকা এই কর্মকর্তা। কর্মজীবনের শেষ দিন তিনি ১৩ অগাস্ট ডিএনপি সদর দপ্তরে সহকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়ের পর বিকালে ঈদ পুনর্মিলনীতে অংশ নেবেন আছাদুজ্জামান মিয়া। গত রোববার রাতে ডিএমপির ফেসবুক পাতায় ‘জননিরাপত্তা বিধানে জনগণের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি’ শীর্ষক লাইভ অনুষ্ঠানে আসেন আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেন, ৩২ বছর পুলিশে চাকরি করেছি। আগামি সপ্তাহ থেকে প্রিয় ইউনিফর্মটা আর পরতে পারব না। এটা অনেক কষ্টের। আমি সম্মানিত নাগরিকদের কৃতজ্ঞতা জানাই। বিশেষ করে, যেসব জেলায় অনেকদিন চাকরি করেছি। আমি তাদের যে ভালোবাসা, সমর্থন, সহযোগিতা পেয়েছি, তাতে অত্যন্ত আনন্দিত ও কৃতজ্ঞ। চেষ্টা করেছি জনগণের জন্য কাজ করার, দেশের জন্য কাজ করার। ১৯৬০ সালের ১৪ অগাস্ট ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় জন্ম নেওয়া আছাদুজ্জামান ১৯৮৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। সিলেট, সুনামগঞ্জ, পাবনা, টাঙ্গাইলসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও রেঞ্জে দায়িত্ব পালনের পর হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজিও হয়েছিলেন তিনি। ২০১৫ সালের ৭ জানুয়ারি ডিএমপি কমিশনার পদে যোগ দেন। ফেসবুক লাইভে আছাদুজ্জামান মিয়ার সঙ্গে ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান মো. মনিরুল ইসলামও উপস্থিত ছিলেন। বিদায়ী ডিএমপি কমিশনার বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের একবিংশ শতাব্দীর উপযোগী একটি পুলিশ সার্ভিস প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এটা সময়ের দাবি। পুলিশ সদস্যদের সংবেদনশীলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ভালোবাসা দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ান। যারা ভিকটিম, নিপীড়িত, অবহেলিত, নির্যাতিত- আসুন তাদের পাশে দাঁড়াই, দুর্বৃত্তদের দমন করি কঠোর হাতে। অনেক ‘অন্ধকার’ পেরিয়ে এখন ‘আলো’ দেখতে পাচ্ছেন মন্তব্য করে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, একটি অনুরোধ থাকবে, আমাদের বুঝতে হবে যে, আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী। আমরা জনগণের চাকর। বল প্রয়োগ করা, লাঠি ঘোরানোর দিন আর নেই। এখন জনগণকে ভালবাসতে হবে, শ্রদ্ধা করতে হবে, ভালো সেবা দিতে হবে। যত তাড়াতাড়ি আমরা এটা বুঝব, ততই আমাদের জন্য মঙ্গল হবে।