ঢাকা   ২৭ মে ২০২০ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে ৬শ অসহায় পরিবারকে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ (জামালপুরের খবর)        জামালপুরবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই: আশরাফুল ইসলাম বুলবুল (জামালপুরের খবর)        করোনা দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের সমস্যা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন-মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)        গন্তব্যে পৌছবে কি ছানুর নৌকা (জামালপুরের খবর)        বেতন ও বোনাসের টাকায় ঈদ সামগ্রী নিয়ে দেড়শ মধ্যবিত্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন কিরন আলী (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ভাগ্য বিড়ম্বিত শিশুদের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে তরুনদের সহায়তায় দুইশত পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ময়মনসিংহে ৩শ দরিদ্র পরিবারের মাঝে সেনা প্রধানের ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন আর্টডক সদস্যরা (ময়মনসিংহ)        করোনা যোদ্ধা নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী দাস শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন (ময়মনসিংহ)        বিদ্যানদীর মত সকল সামাজিক সংগঠন যদি এই দুর্যোগের সময়ে এগিয়ে আসে তবে সরকারের উপর চাপ অনেকংশে কমে যাবে -মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)      

ভর্তুকি ছাড়া বেসরকারি উদ্যোক্তারাও এলএনজি আমদানি করতে পারবে

Logo Missing
প্রকাশিত: 06:58:41 pm, 2019-09-14 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আ.জা.ডেক্সঃ তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) প্রয়োজনে বেসরকারি উদ্যোক্তারাও আমদানি, ব্যবহার ও সরবরাহ করতে পারবে। সেক্ষেত্রে নিরাপত্তা মানদ- ঠিক রাখতে হবে। তবে বেসরকারি খাতে এলএনজি আমদানিতে সরকার কোনো ভর্তুকি দেবে না। ফলে বেসরকারি উদ্যোক্তারা এলএনজি আমদানি, পুনরায় গ্যাসে রূপান্তর, ব্যবহার এবং সঞ্চালনে নিজেরাই দরকষাকষি করে ব্যবসা করতে পারবে। অবশ্য সরকার বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এলএনজি জাতীয় গ্রীডে ঢোকাতে আগ্রহী নয়। তবে উদ্যোক্তারা চাইলে নিয়ম অনুযায়ী হুইলিং চার্জ দিয়ে সঞ্চালন লাইন ব্যবহার করতে পারবে। জ¦ালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, নিরাপত্তা মানদ- বজায় রেখে বেসরকারি উদ্যোক্তারা যে কোনো ধরনের বাহনে এলএনজি পরিবহন এবং যে কোনো ধরনের স্থাপনায় রিগ্যাসিফিকেশন করতে পারবেন। পরিত্যক্ত সাঙ্গু গ্যাস ক্ষেত্রের স্থাপনা এলএনজি লোড-আনলোড বা রিগ্যাসিফিকেশনের জন্য ব্যবহার করা যায় কি না তা সরকার বিবেচনা করছে। সরকার না পারলে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের প্রস্তাবও ইতিবাচকভাবে বিবেচনা করা হতে পারে। অতিসম্প্রতি বেসরকারি খাতে এলএনজি স্থাপনা নির্মাণ, আমদানি ও সরবরাহ নীতিমালা-২০১৯ নিয়ে এক সভার আয়োজন করা হয়। ওই সভায় নীতিমালার বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। সূত্র জানায়, বিভিন্ন দেশে হোটেলে-শিল্পে ছোটো আকারেও এলএনজি রিগ্যাসিফিকেশনের উদাহরণ রয়েছে। বাংলাদেশে এটি ব্যাবসায়িকভাবে উপযুক্ত হলে উদ্যোক্তারাও ওই একইভাবে এলএনজি পুনরায় গ্যাসে রূপান্তর করতে পারবেন। তবে সরকার বর্তমানে যেভাবে এলএনজি আমদানি ও সরবরাহে ভর্তুকি দিচ্ছে তা বেসরকারি পর্যায়ে থাকবে না। অর্থাৎ পিডিবি বেসরকারি বিদ্যুতের ক্ষেত্রে যেভাবে ভর্তুডশ দেয়, বেসরকারি এলএনজিতে তা দেওয়া হবে না যেমনটি। বরং ব্যবসায়ীরা নিজেদের প্রয়োজনে এবং নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী আমদানি-রিগ্যাসিফিকেশন করবে। এ বিষয়ে জ্বালানি সচিব আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেছেন, এলএনজি খাতে বাংলাদেশ নতুন। তাই অনেকে কুপরামর্শ নিয়ে হাজির হয়। সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ভালোভাবে বিশ্লেষণ-বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা প্রয়োজন। নিরাপত্তা এবং বাণিজ্যিকভাবে উপযুক্ততা বিচার করে এলএনজি আমদানি-সরবরাহ করার ওপর গুরুত্ব দিতে হবে।