ঢাকা   শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ | ৩ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  সুনামগঞ্জে শিশু তুহিন হত্যা: বাবার পক্ষে লড়বেন না কোনো আইনজীবী (আইন ও বিচার)        যেখানে দুর্নীতি-টেন্ডারবাজি, সেখানেই অভিযান: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (জাতীয়)        সড়কে দুর্ঘটনা এাড়তে সবাইকে সচেতন হবার আহবান প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        বাংলাদেশের কৃষি এখন বিশ্বের অন্যতম রোল মডেলু: খাদ্যমন্ত্রী (জাতীয়)        প্রচুর অন্যায় এদেশে গেড়ে বসে আছে: পরিকল্পনামন্ত্রী (জাতীয়)        জামালপুরে ঘুষের টাকাসহ হাসপাতাল কর্মচারী আটক (জেলার খবর)        আজারবাইজানের ন্যাম সম্মেলনে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী (জাতীয়)        সংবাদকর্মীদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস তথ্য প্রতিমন্ত্রীর (জাতীয়)        আবরার হত্যা নিয়ে বিএনপির নোংরা রাজনীতি পরিহার করা উচিত: হানিফ (রাজনীতি)        জামালপুরে শিশু নির্যাতন সম্পর্কে স্বভাব নেতাদের সাথে কর্মশালা (জামালপুরের খবর)      

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে বাংলাদেশ

Logo Missing
প্রকাশিত: 01:00:02 am, 2019-09-19 |  দেখা হয়েছে: 7 বার।

আ.জা. খেলা ডেক্স: ত্রিদেশীয় সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৩৯ রানে হারিয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে আসরটির ফাইনাল নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ। বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় মাঠে নামে দু’দল। যেখানে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান করে টাইগাররা। টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করা বাংলাদেশের হয়ে উদ্বোধনী জুটিতে ৪.৫ ওভারে ঝড়ো ৪৯ রান তোলেন লিটন দাস ও নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে পঞ্চম ওভারে কাইল জার্ভিসের বলে তার কাছে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন শান্ত (১১)। আর পরের ওভারেই ক্রিস এমপোফুর বলে তুলে মারতে গিয়ে নেভিল মাদজিভাকে ক্যাচ দেন লিটন। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান ২২ বলে ৪টি চার ও দুটি ছক্কায় ৩৮ রান করেন। দলীয় ৬৫ রানে তৃতীয় উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ব্যক্তিগত ১০ রান করে রায়ান বার্লের বলে আউট হন তিনি। কিন্তু এরপর মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহ দ্রুত ব্যাট চালিয়ে ১২তম ওভারে দলীয় ১০০ রান পূরণ করেন। চতুর্থ উইকেট জুটিতে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে ৭৮ রান করে ফেরেন মুশফিকুর রহিম। টিনোটেন্ডা মাতুমবদজি বলে আউট হওয়ার আগে ২৬ বলে ৩ চার ও এক ছক্কায় ৩২ করেন মুশফিক। আর শেষে ওভারে আউট হন দুর্দান্ত ব্যাটিং করা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কাইল জার্ভিসের বলে আউট হওয়া এই ডানহাতি ৪১ বলে এক চার ও ৫টি ছক্কায় ঝড়ো ৬২ রান করেন। এটি তার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে চতুর্থ হাফসেঞ্চুরি। একই ওভারে মোসাদ্দেক হোসেন তুলে মারতে গিয়ে ব্যক্তিগত ২ রানে বিদায় নেন। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৬ রানে অপরাজিত থাকেন। জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট পান পেসার কাইল জার্ভিস। আর দুটি উইকেট তুলে নেন ক্রিস এমপোফু। এছাড়া বার্ল ও মুতুমবোদজি একটি উইকেট পান। ১৭৬ রানের লক্ষ্যে প্রথম দুই ওভারে দুই উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ইনিংসের প্রথম ওভারে মাত্র এক রান দিয়ে ব্র্যান্ডন টেইলরের উইকেট তুলে নেন। পরের ওভারে রেজিস চাকাভাকে সরাসরি বোল্ড করেন সাকিব আল হাসান। দীর্ঘদিন পর দলে ফেরা শফিউল ইসলামও নিজের প্রথম ওভারে উইকেটের দেখা পান। শন উইলিয়ামসকে ব্যক্তিগত দুই রানে আফিফ হোসেনের ক্যাচে ফেরান তিনি। অভিষেক ম্যাচে নিজের প্রথম ও দলীয় সপ্তম ওভারে উইকেটের দেখা পান আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। মাতুমবদজিকে ব্যক্তিগত ১১ রানে ফেরান এই লেগস্পিনার। পরের ওভারেই রায়ান বার্লকে সরাসরি বোল্ড করে নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন শফিউল ইসলাম। আর নবম ওভারে ফের বোলিং করতে এসে ২৫ বলে ২৫ রান করা জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে এলবির ফাঁদে ফেলেন আমিনুল। রিচমন্ড মুতুমবামিকে বিদায় করে নিজের তৃতীয় উইকেট তুলে নেন এ ম্যাচে টাইগারদের সবচেয়ে সফল বোলার শফিউল। ৩২ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় জিম্বাবুয়ের হয়ে দলীয় সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন এই ব্যাটসম্যান। দলীয় শেষ ওভারে বল করতে আসা মোস্তাফিজুর রহমান দুই উইকেট তুলে নেন। ২৭ রানে থাকা কাইল জার্ভিসকে বিদায় করে আবার দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে ৫০ উইকেট নেওয়ার কীর্তি গড়েন কাটার মাস্টার। এর আগে সাকিব এই রেকর্ড গড়েছিলেন। বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে শফিউল সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট পান। মোস্তাফিজ ও আমিনুল দুটি করে উইকেট ভাগ করেন। এছাড়া সাইফউদ্দিন ও সাকিব একটি করে উইকেট নেন। বাংলাদেশ দলে এ ম্যাচে আনা হয় তিন পরিবর্তন। পেসার শফিউল ইসলাম দলে ঢুকেছেন। আর অভিষেক হলো ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত ও লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের।