ঢাকা   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

বৃষ্টি নামল শুটিংয়ে

Logo Missing
প্রকাশিত: 02:01:55 pm, 2017-10-23 |  দেখা হয়েছে: 17 বার।

সারা দেশেই গত শুক্রবার ভোররাত থেকে টানা বৃষ্টি। জনজীবন অনেকটাই স্থবির। সিনেমাপাড়াতেও এর প্রভাব পড়েছে। বৃষ্টির কারণে ঢাকার বাইরে বিভিন্ন লোকেশনে বেশ কয়েকটি ছবির শুটিং আটকে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। কয়েকটি ছবির শুটিং গতকাল থেকে শুরু কথা থাকলেও বৃষ্টির কারণে তা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। বড় ইউনিট নিয়ে বৃষ্টিতে আটকে যাওয়ায় ছবির বাজেট নিয়ে চিন্তিত পরিচালকেরা।
টানা এক মাস ধরে মাহিয়া মাহি ও শিবলীকে নিয়ে লালমনিরহাটে চলছে মন দেব, মন নেব ছবির শুটিং। প্রায় ১৫০ জনের এই ইউনিট বৃষ্টির কারণে গত দুদিন কোনো শুটিং করতে পারেনি। ছবির শেষ অংশের কাজ ও গানের শুটিং করার কথা এ সময়ে। পরিচালক রবিন খান জানান, আউটডোরে একটি গ্রামের সেট ফেলা হয়েছে। পাশাপাশি ইটের ভাটায় কাজ করার কথা, কিন্তু বৃষ্টিতে গত দুদিনে ঠিকমতো শুটিং করা যাচ্ছে না।
শুটিং লোকেশন থেকে মুঠোফোনে এই পরিচালক বলেন, ‘এত বড় ইউনিট নিয়ে চরম বিপদে আছি। বড় অঙ্কের লোকসান হয়ে গেল। ছবির বাজেট বেড়ে যাবে।’
বৃষ্টির কারণে বাহাদুরি ছবির কাজ শেষ না করেই গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা ফিরেছে ইউনিট। ১৭ অক্টোবর থেকে কালিয়াকৈরের সোহাগপল্লিতে চার দিনের শিডিউলে কাজ শুরু হয়। তিন দিন কাজ করার পর বৃষ্টির কবলে পড়ে শুটিং। ছবির পরিচালন শফিক হাসান বলেন, ‘জায়েদ খান, সাইমন ও পরীমনিকে নিয়ে কাজ করছিলাম। বড় ইউনিট। আকাশের অবস্থা দেখেই ফিরে এসেছি। মনে হচ্ছে, আরও কয়েক দিন বৃষ্টি থাকবে। পুরো ইউনিট নিয়ে বসে থাকলে ছবির বাজেট অনেক বেড়ে যাবে। এ কারণে এক দিনের কাজ বাকি থাকতেই প্যাকআপ করেছি শুটিং।’
গতকাল শনিবার থেকে শুটিং শুরুর কথা ছিল আরেকটি ছবির। অপূর্ব রানার পরিচালনায় নাম ঠিক না হওয়া নতুন এ ছবিতে অভিনয় করছেন সাইমন, শাহরিয়াজ, নিঝুম, অরিন প্রমুখ। শুটিং এক দিন পেছানো হয়েছে। কিন্তু আজও বৃষ্টি হতে পারে, এমন আশঙ্কা আছে পরিচালকের। অপূর্ব বললেন, ‘যদি বৃষ্টি না থামে, তা–ও কাল (আজ) থেকে পুবাইলের লোকেশনে ইনডোরের কাজগুলো শুরু করব।’
এদিকে শোনা যাচ্ছিল, বান্দরবানের লোকেশনে একটি সিনেমার গল্প ছবির শুটিংও বৃষ্টিতে আটকেছে। এ বিষয়ে ছবির পরিচালক আলমগীরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘গানের শুটিং বাকি ছিল। শুক্রবার কোনোমতে বৃষ্টির ফাঁকে ফাঁকে কাজ করে শেষ করেছি। ওই দিন শেষ না করতে পারলে আজ (শনিবার) আটকে যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। এখন আমরা ঢাকায় ফিরছি।’