ঢাকা   ২৩ নভেম্বর ২০১৯ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  চট্টগ্রামে বিমানবন্দরের টয়লেট থেকে চার কোটি টাকার স্বর্ণ উদ্ধার (অপরাধ)        ব্যাটারিচালিত যানবাহন চার্জে কম দামে বিদ্যুৎ দেবে সরকার (বাংলাদেশ)        বাড়তি ব্যাটসম্যান না রাখার মাশুল দিল বাংলাদেশ (খেলাধুলা)        গোলাপি বল নাকি সর্ষে ফুল? (খেলাধুলা)        এসএ গেমসের ড্র: বাংলাদেশ খেলবে এ-গ্রুপে (খেলাধুলা)        যৌন হয়রানির অভিযোগে টেনিসের সাধারণ সম্পাদক বরখাস্ত (খেলাধুলা)        বাতিল হচ্ছে আসামের এনআরসি (আন্তর্জাতিক)        আফ্রিকার কঙ্গোতে মহামারি হামে ৫০০০ মৃত্যু (আন্তর্জাতিক)        ২১ বছর বয়সেই বিচারপতি (আন্তর্জাতিক)        রানুর মেকআপ আর্টিস্ট ভাইরাল ছবির ব্যাখ্যা দিলেন (বিনোদন)      

প্রচুর অন্যায় এদেশে গেড়ে বসে আছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:26:31 pm, 2019-10-16 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আ.জা.ডেক্সঃ

বিভিন্ন আইনের কারণেও দেশের মানুষ দরিদ্র হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। গতকাল বুধবার ‘টেকসই উন্নয়ন অর্জনে আন্তর্জাতিক সূচক’ শীর্ষক এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সম্মেলন কক্ষে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, এসডিজি বিষয়ক প্রধান সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ এবং ইউএনডিপির আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি। অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, প্রচুর অন্যায় এদেশে গেড়ে বসে আছে। দারিদ্র্যের অন্যায়গুলো পরিষ্কার, হঠাৎ করে এরা দরিদ্র হয়নি। আইনের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত আমরা তাদের দরিদ্র করছি আরও। সেগুলো আমাদের কাছে পরিষ্কার। কিন্তু আমরা কিছু করতে পারছি না। আইনের মাধ্যমে কিভাবে মানুষ আরও দরিদ্র হচ্ছে তার ব্যাখ্যায় এম এ মান্নান বলেন, দেশে যেসব সরকারি খাল-বিল আছে সেখানে কই, পুঁটি মাছ থাকে। সেগুলো গরীব মানুষরা জাল, পোলো দিয়ে ধরে খায়। কিন্তু সেসব খাল-বিলগুলো এখন রাষ্ট্রীয় সম্পদ বানিয়ে ইজারা দেওয়া হয়। ইজারা দেয় প্রতিবছর সামান্য কিছু টাকায়। অথচ এখন গরীব মানুষগুলো পোলো বা জাল নিয়ে বের হয়ে কিছু মাছ ধরতে পারছে না। বাড়ীর ধারে বন আছে, সেখান থেকে কিছু কাঠ এনে রান্না করত। এখন সেটাও পারে না। সেখানেও এখন বন্দুকধারী পাহারাদার বসিয়ে দিয়েছে। প্রায় ৩৫ বছর আগে নিজে ডিসি থাকার সময়ের স্মৃতি স্মরণ করে তিনি বলেন, আমি ডিসি থাকা অবস্থায় একবার কিছু গরীব মানুষের হাতে খাস জমির দলিল তুলে দিয়েছিলাম। তবে দুই মাস পরে শুনি ওগুলো তাদের নেই। প্রভাবশালীরা তাদের মেরে বের করে দিয়েছে অথবা বখশিস দিয়ে বিদায় করে দিয়েছে। তিনি আরও বলেন, দেশে এখন উন্নয়নের ফুরফুরে হাওয়া বইছে। সার্বিকভাবে একটি ভাল পর্যায়ে আছি বলে আমি মনে করি। তবে আমাদের সাবধানে থাকতে হবে। কারণ এখন উন্নয়নের বাস্তবতার চাইতে তথ্য কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। এজন্য তিনি উন্নয়নের চিত্র যাতে বিশ্বের উন্নয়ন প্রতিদেবনগুলোকে সঠিকভাবে সন্নিবেশিত হয়, সেজন্য দক্ষতার সাথে তথ্য ব্যবস্থানার ওপর গুরত্বারোপ করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান বলেন, আমরা উন্নয়নে বাস্তবে ভালো করছি। কিন্তু তথ্যে ভাল করতে পারছি না। অথচ উন্নত বিশ্বের কাছে বাস্তবের চাইতে তথ্যের উন্নয়নের গুরুত্ব বেশি। তাই এসডিজিসহ উন্নয়নের সকল তথ্য সর্বাধুনিকভাবে উপস্থাপন ও এ বিষয়ে দক্ষতা অর্জনের পরামর্শ দেন তিনি। আবুল কালাম আজাদ বলেন, এসডিজি, ব্যবসা সহজীকরণ ও প্রতিযোগিতা সক্ষমতা প্রতিবেদনগুলোতে তথ্যের সঠিক বিন্যাস অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের পারফরম্যান্স ভালো হলেও রিপোর্টিং ভাল না হওয়ার কারণেও অনেক সময় সঠিক উন্নয়নচিত্র দেখানো সম্ভব হচ্ছে না। তিনিও উন্নয়নের তথ্য ব্যবহারের জন্য দক্ষতা অর্জনের পরামর্শ দেন।