ঢাকা   ০৪ জুলাই ২০২০ | ২০ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সভা (জাতীয়)        স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সরিয়ে দেয়ার দাবি সংসদে (জাতীয়)        এইচএসসির মূল সনদ বিতরণ আজ থেকে (শিক্ষা)        ২৪ ঘণ্টায় নতুন মৃত্যু ৪১, আরও ৩৭৭৫ করোনা রোগী শনাক্ত (জাতীয়)        চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে পৃথিবী, এগিয়ে যাবো আমরাও - তথ্য প্রতিমন্ত্রী (জামালপুরের খবর)        জামালপুর পৌরসভার ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে ১৩২ কোটি ৩৪ লক্ষ ২৪ হাজার টাকার বাজেট ঘোষনা (জামালপুরের খবর)        মেলান্দহ পৌরসভার পানি শোধানাগার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন (জামালপুরের খবর)        মাদারগঞ্জ পৌরসভার নতুন ভবনের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করলেন মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে বন্যার পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু (জামালপুরের খবর)        জামালপুর সদর উপজেলায় বন্যার পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে ফসলি জমি (জামালপুরের খবর)      

শেরপুরে সাবেক ফারর্মাস ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের বিরুদ্ধে অনিয়মনের অভিযোগ: ঋণ গ্রহিতাদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

Logo Missing
প্রকাশিত: 02:46:57 am, 2019-11-21 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

শেরপুর প্রতিনিধি:

শেরপুরে সাবেক ফারর্মাস বাংকের (বর্তমান পদ্মা ব্যাংক) পরিচালনা পর্ষদ এবং কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও গ্রাহক হয়রানীর অভিযোগে মানববন্ধন এবং জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধান মন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

২০ নভেম্বর বুধবার দুপুরে শেরপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের ঋণ গ্রহিতা মো. ইলিয়াস উদ্দিন। মানববন্ধন শেষে জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এসময় ব্যাংকের অন্যান্য ঋণগ্রহিতা এবং তাদের পরিবারের ভুক্তভোগি সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, শুরু থেকেই ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের অন্যতম সদস্য বর্তমানে দুদকের মামলায় কারাগারে আটক বাবুল চিশতি এবং স্থানীয় শাখার অসাধু কতিপয় কর্মকর্তা সু-কৌশলে এবং নানা প্রলোভন দেখিয়ে ঋণ অনুমোদন করে সেখান থেকে প্রায় অর্ধেক পরিমান টাকা নিজেরা ঘুষ বা কমিশন নিয়ে বাকি অর্ধেক টাকা গ্রাহকের হাতে তুলে দেয়। ফলে নির্দিষ্ট অংকের টাকা না পেলেও ব্যবসা করতে গিয়ে ওই টাকার উপর ঋণের বোঝা নিয়ে ব্যবসা করতে গিয়ে লাভের মুখ না দেখতে পাওয়ায় সবাই ঋণ খেলাপি হয়ে পরে। পরবর্তিতে তাদের বিরুদ্ধে ঋণ খেলপির মামলা দিয়ে শেরপুর ছাড়া করা হয়েছে।