ঢাকা   বৃহস্পতিবার ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  সদর উপজেলাবাসীর আশার আলো উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন (জামালপুরের খবর)        বকশিগঞ্জ উপজেলায় স্থানীয় সরকার ও প্রশাসনের সাথে জনতার সংলাপ (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে বিতর্ক প্রতিযোগিতা (জামালপুরের খবর)        খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে হস্তক্ষেপ করছেনা সরকার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (জামালপুরের খবর)        বাল্যবিবাহ মুক্ত ময়মনসিংহ বিভাগ ঘোষণা করায় ইসলামপুরে র‌্যালি ও মানববন্ধন (জামালপুরের খবর)        দেওয়ানগঞ্জে জাতীর পিতার জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে র‌্যালি, মানববন্ধন, গন স্বাক্ষর ও শপথ গ্রহন (জামালপুরের খবর)        কুষ্ঠ রোগীদের ওষুধ তৈরী ও বিনামূল্যে বিতরণে স্থানীয় কোম্পানীগুলোর প্রতি আহবান প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)        খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের আসল রিপোর্ট বদলে ফেলা হচ্ছে: ফখরুল (রাজনীতি)        অভিযোগ প্রমাণে শাজাহান খানকে ফের ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম ইলিয়াস কাঞ্চনের (ঢাকা)        আওয়ামী লীগে কোনও দূষিত রক্ত থাকবে না: ওবায়দুল কাদের (রাজনীতি)      

এবার সেভ দ্য চিলড্রেনের শুভেচ্ছাদূত হলেন বিপাশা

Logo Missing
প্রকাশিত: 09:49:03 pm, 2019-12-02 |  দেখা হয়েছে: 3 বার।

আ.জা. বিনোদন:

আন্তর্জাতিক বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেনের শুভেচ্ছাদূত হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী, পরিচালক ও চিত্রশিল্পী বিপাশা হায়াত। রোববার সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশের কান্ট্রি অফিসে সংশ্লিষ্ট সংস্থা এবং বিপাশা হায়াতের মধ্যে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সম্পন্ন হয়। সেভ দ্য চিলড্রেনের পক্ষ থেকে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন সংস্থার বাংলাদেশ কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্ক পিয়ের্স। বাংলাদেশে সেভ দ্য চিলড্রেনের ৫০ বছর পূর্ণ হওয়ার প্রাক্কালে এই সংস্থার শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যোগ দিলেন বিপাশা হায়াত। সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আমরা আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি, বিখ্যাত অভিনেত্রী, নাট্যকার ও চিত্রশিল্পী বিপাশা হায়াত আমাদের শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন। তিনি আমাদের সঙ্গে শিশুর অধিকার নিশ্চিত, শিশুদের বিরুদ্ধে সহিংসতা বন্ধের বিষয়ে সচেতনতার জন্য কাজ করবেন। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আগে বিপাশা হায়াত নগরীর মুগদায় সেভ দ্য চিলড্রেন ইন বাংলাদেশের চাইল্ড প্রোটেকশন সেক্টরের স্টপ টলারেটিং ভায়োলেন্স অ্যাগেইনস্ট চিলড্রেন প্রকল্প ঘুরে দেখেন এবং শিশুদের সঙ্গে প্রায় দুই ঘণ্টা সময় কাটান। বিপাশা হায়াত বলেন, অনেক দিন ধরেই পথশিশু, নির্যাতিত শিশু ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য কাজ করতে আগ্রহী ছিলাম। আমি যখন থেকে মা, তখন থেকে শিশুদের প্রতি আমার যে দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি হয়েছে, যে মমতা তৈরি হয়েছে, তা কেবল আমার সন্তানদের জন্য নয়, সব শিশুদের জন্যই।