ঢাকা   রবিবার ১৬ জুন ২০১৯ | ২ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  নাটোরে হত্যা মামলার সাক্ষীকে কুপিয়ে হত্যা (জেলার খবর)        উগ্র সন্ত্রাসবাদ নিয়ন্ত্রণ না করলে উন্নয়ন থমকে যাবে: মেয়র খোকন (ঢাকা)        শিক্ষার উন্নয়নে সীমিত সম্পদের সর্বোচ্চ ব্যবহারের ওপর গুরুত্ব শিক্ষামন্ত্রীর (শিক্ষা)         ওসি মোয়াজ্জেমের গ্রেফতারি পরোয়ানা যশোরে পৌঁছেছে (জেলার খবর)        ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকার বাজেট পেশ (জাতীয়)        বাজেট দিতে হাসপাতাল থেকেই সংসদে গেলেন অসুস্থ অর্থমন্ত্রী (জাতীয়)        চট্টগ্রামে কৃত্রিম পরিবেশে জন্মালো ২৬টি অজগর ছানা (চট্রগ্রাম)        শেখ হাসিনার নির্বাচিত উক্তি নিয়ে দু’টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন (জাতীয়)        রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু না হওয়ায় জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগ (জাতীয়)         বেনাপোলে একদিনে রেকর্ড পরিমাণ আমদানি পণ্যের চালান (জেলার খবর)      

তনুশ্রীর পাশে মন্ত্রী ও ‘চিন্তা’

Logo Missing
প্রকাশিত: 09:11:15 pm, 2018-10-03 |  দেখা হয়েছে: 3 বার।

আজ ডেক্স

এক দশক আগে যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন ২০০৪ সালের ‘মিস ইন্ডিয়া’ ও একসময়ের বলিউড তারকা তনুশ্রী দত্ত। ওই সময় অভিযোগও করেছিলেন। তখন কেউ পাত্তা না দিলেও এখন হালে পানি পেতে শুরু করেছে সেই অভিযোগ। যৌন হয়রানি বিষয়ে নতুন করে মুখ খোলায় ভারতে ‘#মিটু’ ইস্যুতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে দেশটির নারী ও শিশু উন্নয়নমন্ত্রী মানেকা গান্ধী এবং সিনে অ্যান্ড টিভি আর্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (চিন্তা)।
হলিউডের ‘#মিটু’ আন্দোলনের হাওয়া ছড়িয়ে যেতে শুরু করেছে সারা বিশ্বে। দেরিতে হলেও সেখানকার যৌন হয়রানির শিকার হওয়া নারীরা মুখ খুলতে শুরু করেছেন। সবার ধারণা, তার জের ধরে মুখ খুলেছেন নানা পাটেকারের কাছে যৌন হয়রানির শিকার অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। তাঁর দাবি, ২০০৮ সালে ‘হর্ন ওকে প্লিজ’ ছবির সেটে নানা পাটেকার তাঁর সঙ্গে আপত্তিকর আচরণ করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী মানেকা গান্ধী বলেছেন, কোনো প্রকার হয়রানিই সহ্য করা হবে না।
ভারতের একটি টিভি চ্যানেলকে মানেকা গান্ধী বলেছেন, ‘আমাদেরও মিটু ইন্ডিয়ার মতো কিছু একটা শুরু করা দরকার, যাতে কোনো নারী যৌন হয়রানির শিকার হলে আমাদের কাছে অভিযোগ জানাতে পারে। আমরা সেগুলোর তদন্ত করব।’ পুরোনো ঘটনাগুলোর ক্ষেত্রে ব্যবস্থা কী হবে? তিনি বলেন, ‘হলিউডে হার্ভে ওয়াইনস্টিনের বিরুদ্ধে যখন অভিযোগ করা হয়েছিল, তখনো সবাই এ প্রশ্ন করেছিল। কখন অভিযোগ করা হলো, সেটা কোনো বিষয় নয়। যৌন হয়রানির শিকার হলে সেটা আজীবন মনে থাকে। যৌন হয়রানির ক্ষেত্রে অভিযোগ যখনই করা হোক, আমরা ব্যবস্থা নেব।’
২০০৮ সালে তনুশ্রী দত্তের সঙ্গে ঘটে যাওয়া ঘটনায় পাত্তা না দিলেও এখন বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে কাজ করতে চাইছে সেখানকার সিনে অ্যান্ড টিভি আর্টিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (চিন্তা)। তনুশ্রী জানান, ঘটনা ঘটার পরই তিনি ওই সংগঠনের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। কিন্তু তারা পাত্তাই দেয়নি। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে চিন্তা জানিয়েছে, যেকোনো ব্যক্তির সঙ্গে কোনো ধরনের যৌন হয়রানির ঘটনা মোটেই গ্রহণযোগ্য নয়। ২০০৮ সালের মার্চে তনুশ্রীর অভিযোগের তদন্ত করে ওই বছরের জুলাই মাসে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, সেটি সঠিক ছিল না। সংগঠনটি এখন দ্রুত এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছে।
এবার তনুশ্রী দত্তের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন বলিউডের নির্মাতা আর অভিনয়শিল্পীরা। তাঁদের মধ্যে আছেন আশা ভোসলে, ফারহান আখতার, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, সোনম কাপুর, টুইঙ্কল খান্না, পরিণীতি চোপড়া, রিচা চাড্ডা, স্বরা ভাস্কর, রাভিনা টেন্ডন প্রমুখ। সবাই এ ঘটনার প্রতিবাদ করছেন, কথা বলছেন, ভুক্তভোগীকে মানসিক ও শারীরিকভাবে সমর্থন দিচ্ছেন। সবার সমর্থন পেয়ে খুশি তনুশ্রী দত্ত।