ঢাকা   রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জয় পেয়ে শিরোপার আরও কাছে রিয়াল (খেলাধুলা)        বিসিবি মনোবিদ নিয়োগ দিচ্ছে ক্রিকেটারদের জন্য (খেলাধুলা)        আরো একটি সাহসী সিদ্ধান্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজের (খেলাধুলা)        যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি হঠাৎ চীনের নরম সুর কেন? (আন্তর্জাতিক)        মাস্ক পরতে রাজি হয়েছেন ট্রাম্প (আন্তর্জাতিক)        এমিরেটস এয়ারলাইন ৯ হাজার কর্মী ছাঁটাই করবে (আন্তর্জাতিক)        করোনার ভ্যাকসিন তৈরিতে ৩৩০০ কোটি রুপি দিলেন লক্ষী মিত্তল (আন্তর্জাতিক)        বাতাসে ভেসে বেড়ায় করোনাভাইরাস, নতুন নির্দেশিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (আন্তর্জাতিক)        কোভিড-১৯: পরিবারসহ আক্রান্ত তমা মির্জা (বিনোদন)        অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত (বিনোদন)      

নারায়ণগঞ্জে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, আটক ৬

Logo Missing
প্রকাশিত: 01:58:09 am, 2019-12-11 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

আ.জা. ডেক্স:

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় এক কিশোরী শ্রমিককে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় ছয় যুবককে আটক করেছে পুলিশ। ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, গত সোমবার সন্ধ্যায় বটতলা এলাকায় শাহাজালাল রোলিং মিল সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

সোমবার রাতে গ্রেফতারের পর আসামীদের মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়। বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পৃথক আদালতে আসামীরা গণধর্ষণের দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করে। জবানবন্দি শেষে আদালতের নির্দেশে তাদের প্রত্যেককে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সোমবার রাতে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার দাপা ইদ্রাকপুর এলাকায় ওই কিশোরীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে একটি ইটভাটার পাশে গণধর্ষণের ঘটনায় কিশোরীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাতেই পুলিশ অভিযুক্ত ছয় ধর্ষককে গ্রেফতার করে। মঙ্গলবার দুপুরে ফতুল্লা থানার সম্মেলন কক্ষে জেলার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর থানার মুক্তিরকান্দি গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে রাসেল, নেত্রকোনা জেলার কালিয়াজুরি থানার লিন্সা দক্ষিনপাড়া গ্রামের মৃত. রুকু মিয়ার ছেলে সুজন মিয়া, মুন্সিগঞ্জ জেলার শ্রীনগর থানার বিক্রমপুর এলাকার মৃত. খোরশেদ আলমের ছেলে শাহাদাৎ হোসেন, ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানার বিরামপুর গ্রামের ফরিদের ছেলে সুমন, একই জেলার কেন্দুয়া থানার হরিপুর গ্রামের হাদিছুর রহমানের ছেলে রবিন এবং শরীয়তপুর জেলার জাজিরা থানার বোয়ালিয়া ফকির বাড়ির আঃ লতিফের ছেলে আল আমিন। আসামীরা প্রত্যেকেই একে অপরের বন্ধু এবং দাপা ইদ্রাকপুরসহ আশপাশের এলাকায় ভাড়া বাড়িতে বসবাস করে।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার জানান, ধর্ষিতা কিশোরী নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার গোপচর ফকিরবাড়ি এলাকায় তার চাচাত ভাই আব্দুল কাদিরের কে এম ইন্টারন্যাশনাল এন্ড এ্যাডভ্যান্স মশার কয়েল কারখানায় শ্রমিকের কাজ করে। সোমবার কাজ শেষে সন্ধ্যায় চাচাতো ভাইয়ের সাথে গার্মেন্টসে কাজ নেয়ার জন্য কাদির ফতুল্লা যায়। পথে ফতুল্লার ইদ্রাকপুর এলাকায় কয়েকজন বখাটে তাদের পথরোধ করে। পরে ভাই কাদিরকে আটক রেখে মারধর করে তার কাছে থাকা ৩ হাজার ৪শ’ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে জোর করে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেয়।