ঢাকা   মঙ্গলবার ২১ জানুয়ারী ২০২০ | ৮ মাঘ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  ঝিনাইগাতীতে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত (জেলার খবর)        জামালপুর ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন (জামালপুরের খবর)        আড়াই লাখ টাকা বরাদ্দ পাওয়ার পরও মেরামত হয়নি নলকূপটি (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) এর কর্মবিরতি শুরু (জামালপুরের খবর)        ঝিনাইগাতীতে আন্তঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত (জেলার খবর)        জামালপুরে পল্লী মঙ্গল কর্মসূচী কেন্দ্রে শীতবস্ত্র বিতরণ (জামালপুরের খবর)        প্রবীণ ফটো সাংবাদিক কানুর মৃত্যুতে শ্রাদ্ধ ও শোক বই এ সাক্ষর (জামালপুরের খবর)        রৌমারী সীমান্তে ভারতীয় ৫টি মহিষ আটক (জামালপুরের খবর)        নালিতাবাড়ীতে মালিঝি নদীর খনন কার্যক্রম শুরু (জেলার খবর)        শেরপুরের ব্র্যান্ডিং সুগন্ধি চাল তুলশীমালা ঘ্রান ছড়াচ্ছে দেশে-বিদেশে (জেলার খবর)      

প্রধানমন্ত্রীর সত্যভাষণ বিএনপির গাত্রদাহের কারণ: ওবায়দুল কাদের

Logo Missing
প্রকাশিত: 11:24:29 pm, 2020-01-08 |  দেখা হয়েছে: 12 বার।

আ.জা.ডেক্সঃ

প্রধানমন্ত্রীর সত্যভাষণ বিএনপির গাত্রদাহের কারণ বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আসলে প্রধানমন্ত্রী সত্য কথা বলেছেন, সত্য কথা বলার সৎ সাহস তার আছে। ভুলভ্রান্তি স্বীকার করার সৎ সাহস প্রধানমন্ত্রীর আছে। যেখানে অপরাধ হয়েছে তিনি সেখানে অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছেন।

গতকাল বুধবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রম এবং সমসাময়িক ইস্যুতে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে জাতির আশা পূরণ হয়নি বিএনপির এমন মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের সবকিছু এই পরিসরে বলা সম্ভব নয়। উনি যে বিষয়গুলো বলা দরকার, যেমন দুর্নীতি নিয়ে বলেছেন। সারা দুনিয়াতে দুর্নীতি আছে, আমাদের দেশেও আছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন দুর্নীতিবাজ যেই হোক যত শক্তিশালী হোক তাকে ছাড় দেওয়া হবে না। এই যে অঙ্গীকার নিয়ে জাতির কাছে দুর্নীতিবিরোধী শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন সেটা অব্যাহত থাকবে।

তিনি অঙ্গীকার করেছিলেন মানুষের হক যাতে কেউ কেড়ে নিতে না পারে, সেটা তিনি বাস্তবায়ন করে চলেছে। তিনি বলেছেন আমি আপনাদের হয়ে থাকতে চাই। তারমানে আপনাদের আশা-আকাক্সক্ষার সঙ্গে আমি আছি। বাংলাদেশের উন্নয়নের মহাসড়কে আমার ওপর ভরসা রাখুন। ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী মুখরোচক প্রতিশ্রুতিতে বিশ্বাস করেন না, তার প্রধান লক্ষ্য তরুণদের কর্মসংস্থান এবং সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে কাজ হচ্ছে। আমরা আমাদের যা করণীয় তা করে যাবো, দেড় কোটি কর্মসংস্থানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কাজেই ভবিষ্যৎ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী কিছু বলেননি, এটা ঠিক নয়। নির্ধারিত সময় ২০২১ সালের বিজয়ের মাসে মেট্রোরেল চালু হবে বলে জানান সেতুমন্ত্রী। পরিকল্পনা কমিশনের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের প্রতিবেদন অনুযায়ী গণমাধ্যমে খবর এসেছে যে, নির্ধারিত সময়ে মেট্রোরেলের কাজ শেষ হচ্ছে- এ বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে সবার সঙ্গে আলোচনা করেছি। যে কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি হয়েছে তাদের টেকনিশিয়ানদের সঙ্গে কথা বলেছি, সবার সঙ্গে আলাপ আলোচনা করেছি, তারা যে সময় দিয়েছে তারচেয়ে সময় আমরা আরও বাড়িয়েছি। ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করবেন বলে বলেছিলেন। আমরা এরপরও ২০২১ এ চলে গেছি।

আমাদের আরও কিছু আনুষঙ্গিক কাজ আছে সেসব শেষ করার জন্য সর্বশেষ টার্গেট দিয়েছি ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত। এর মধ্যে আমার মনে হয় কাজ সম্পন্ন হবে। তবে তারা যে টার্গেট দিয়েছে তা ঠিক থাকেনি এমন কোনো ঘটনা এর আগে অন্য কোনো প্রকল্পে ঘটেনি। এর আগে গত ১ জানুয়ারি উত্তরার দিয়াবাড়িতে মেট্রোরেলের লাইনের বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন ও রেল-ট্র্যাক বসানোর কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীতে উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আশা করছি ২০২১ সালে বিজয়ের মাসে ইনশাআল্লাহ এমআরটি লাইন-৬, তরুণ প্রজন্মের ড্রিম প্রজেক্ট, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রয়োরিটি প্রজেক্ট, মেগা প্রকল্প, ফার্স্ট ট্র্যাক প্রজেক্ট, মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ সমাপ্ত হবে, বিজয়ের মাসে উদ্বোধন হবে- এটাই আমাদের নববর্ষের প্রত্যাশা।

মন্ত্রী জানান, এমআরটি লাইন ৬ মেট্রোরেল প্রকল্পের সাড়ে ৮ কিলোমিটার এখন দৃশ্যমান। রাজধানী ঢাকার যানজটের চিরচেনা দৃশ্য ২০৩০ সালে বদলে যাবে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, সব মিলিয়ে ২০৩০ সালে ছয়টি মেট্রোরেলের পৌনে ২০০ কিলোমিটারের সব কাজ শেষ হল ঢাকায় যানজটমুক্ত অনিন্দ্য সুন্দর এক দৃশ্যপট আমরা দেখতে পাব। ঢাকা শহরে যান চলাচলের চিত্রই পাল্টে যাবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক গ্রেফতার হওয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা স্বস্তির খবর। তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে মেয়েটি ধর্ষণের শিকার হলো, সর্বাত্মক অভিযান চালিয়ে সে ধর্ষককেও গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও কথা হয়তো আসবে। এর মোটিভ কী, এর পুরোপুরি এই মুহূর্তে জানা যায়নি। তবে এ মুহূর্তে সবার স্বস্তির বিষয় হচ্ছে, যে ঘটনার সঙ্গে যে জড়িত সে গ্রেফতার হয়েছে।