ঢাকা   রবিবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ১১ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  নাঈমের হাত ধরে এগিয়ে বাংলাদেশ (খেলাধুলা)        আত্মবিশ্বাসের সাথে ভারতের অপেক্ষায় বাংলাদেশ (খেলাধুলা)        পেলের মূর্তি উন্মোচন ব্রাজিলে (খেলাধুলা)        বড় জয়ে লিগ শুরু করলেন বসুন্ধরা কিংসের মেয়েরা (খেলাধুলা)        ২৯ দেশে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস, মৃত্যু বেড়ে ২৩৬০ (আন্তর্জাতিক)        ৪৬ হাজার বছর আগের হর্নড লার্ক পাখির মৃতদেহ! (আন্তর্জাতিক)        এনআরসি-সিএএ নিয়ে মোদির সঙ্গে কথা বলবেন ট্রাম্প (আন্তর্জাতিক)        কাউকে না কাউকে ইরানের সঙ্গে কথা বলতে হবে: মার্কিন সিনেটর (আন্তর্জাতিক)        আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করার অভিযোগ অস্বীকার করল রাশিয়া (আন্তর্জাতিক)        একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ গড়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর (জাতীয়)      

বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ নির্বাচনে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে না: কাদের

Logo Missing
প্রকাশিত: 01:42:39 am, 2020-01-28 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আ.জা. ডেক্স:

নির্বাচন হওয়ার পথে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে না উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে বিএনপি মনোনীত মেয়রপ্রার্থী ইশরাক হোসেনের গণসংযোগে হামলার ঘটনাটি অনাকাক্সিক্ষত। এটি নির্বাচনে কোনও প্রভাব ফেলবে না। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ভিডিও ফুটেজে যা কিছু আছে তাতে প্রমাণ হয় না যে, আওয়ামী লীগের সমর্থকরা আগে হামলা করেছে। ভিডিও ফুটেজে যা আছে তাতে দেখা যায় বিএনপি প্রার্থী নিজেই প্রতিপক্ষের অফিসে লাথি মেরেছেন। তিনি বলেন, নির্বাচন হওয়ার পথে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে না। ইসির উচিত সঠিক তদন্ত করে সত্য উৎঘাটন করা। কাদের বলেন, আমি মনে করি না, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বড় ধরনের কোনো সংঘর্ষ বা সঙ্ঘাত হয়নি। একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এটার ভিডিও ফুটেজ রয়েছে। ভিডিও ফুটেজে যেটা পাওয়া গেছে গুলিটা কোনো পক্ষ থেকে আসছে, তারপর অফিসে লাথি মারা এটিও ফুটেজে আছে। প্রতিপক্ষের অফিসে প্রার্থী নিজেই লাথি মেরেছে। সেটাও কিন্তু ফুটেজে আছে। তিনি বলেন, এটা নিয়ে আমরা কথা বলবো। আপাতো দৃষ্টিতে মনে হবে প্রত্যেকেই নিজের পক্ষে কথা বলছে। বিএনপি তাদের কথা বলছে। বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের ওঁরা (বিএনপি) বুঝাতে চাইছেন যে, আক্রমনটা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে ভিডিও ফুটেজে যা কিছু আছে তাকে কিন্তু সেটা মনে হয় না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, এখানে নির্বাচন কমিশনের উচিত সঠিব তদন্ত করে সত্য উৎঘাটন করা। সত্য উৎঘাটন করে অপরাধ যারই হোক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশন নির্দেশ দিতে পারে। গত রোববার দুপুরে রাজধানীর গোপীবাগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের নির্বাচনি প্রচারণায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বেশ কিছু সময় পর পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই সংঘর্ষের মধ্যে এক সংবাদকর্মীসহ ডজনখানেক লোক আহত হয়েছেন।

নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের মন্তব্য নির্বাচন কমিশনে সমন্বয় ও লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই- এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা ইলেকশন কমিশনের ইন্টারনাল ম্যাটার। সেখানে একজন কমিশনার ভিন্নমত পোষণ করতেই পারেন। কিন্তু তিনি কথায় কথায় যেভাবে তাদের ঘরের বিষয়, ইন্টারনাল প্রসিডিউর, বাইরে নিয়ে আসছেন সেটা অবশ্য সমর্থনযোগ্য নয়। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই- এ রকম আজগুবি কথা জীবনে কোথাও আমরা শুনিনি। পৃথিবীর কোনো গণতান্ত্রিক দেশে এমনকি আধা-গণতান্ত্রিক দেশেও এ রকম কথা কেউ শোনেনি। নির্বাচন কমিশনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড বিষয়টা আবার কী? এটা একটি আজগুবি, উদ্ভট কথা। এ ধরনের কথা তিনি (মাহবুব তালুকদার) কীভাবে বলছেন, আমি জানি না। কাদের বলেন, তিনি ভিন্নমত পোষণ করতে পারেন। কিন্তু তার বক্তব্যের সুর ইদানীং বিএনপি যে সুরে কথা বলছে, একই সুরে মাহবুব তালুকদারও কথা বলছেন। মনে হয় তিনি একটা পক্ষ নিয়ে এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।

চারদিন পর নির্বাচন। এ সময়ও অনেক প্রার্থী গ্রেফতারি-হয়রানির চাপে রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, সেটা তো তারা নির্বাচন কমিশনকেও জানাতে পারেন। সরকারের পক্ষ থেকে এখন পুলিশকে এ ধরনের নির্দেশ দেয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না। নির্বাচন-সংক্রান্ত দায়িত্বে যে পুলিশ সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন তারা এখন কমিশনের হুকুমেই চলে। কমিশনই এ ক্ষেত্রে নির্দেশ দিতে পারে। কিন্তু বিএনপি কিছু কিছু অভিযোগ আনছে একেবারেই অন্ধকারে ঢিল ছোড়ার মতো। তারা তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই কথা বলছেন। তথ্য-প্রমাণ তো দিতে পারছেন না। কাকে হয়রানি বা বিনা কারণে গ্রেফতারি পরোয়ানা দেওয়া হয়েছে- এসব অভিযোগের পক্ষে তো তারা কোনো যুক্তি দিতে পারছেন না। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ৭৬ বছরে পা দিলো, এ সম্পর্কে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, তার (মির্জা ফখরুল) জন্য শুভকামনা। তিনি আরও অনেকদিন বাঁচুক। তিনি সুস্থভাবে বাঁচুক আমি আল্লাহর কাছে সেই প্রার্থনা করি।

সীমান্ত হত্যার বিষয়ে জানতে চাইলে সেতুমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, সীমান্ত হত্যার বিষয়ে ফরেন মিনিস্টার কথা বলেছেন। তিনিই আসলে রিয়াল অথরিটি। কাজেই এই ইস্যুতে আমার কথা বলা ঠিক হবে না। ইভিএম নিয়ে গত রোববার কয়েকজন কূটনীতিকের কাছে বিএনপি অভিযোগ করেছে, এ বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ইভিএমের বিষয়ে বিএনপির দায়ের করা রিট হাইকোর্ট খারিজ করে দিয়েছেন। এই সিস্টেম নিয়ে বিতর্কের আর কোনও সুযোগ নেই। করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সরকারের পক্ষ থেকে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনা ভাইরাস সম্পর্কে নেওয়া পদক্ষেপ কেবিনেটকে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। রোহিঙ্গাদের রায়ের বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, এটি অন্তর্বর্তীকালীন রায়। এটি নিয়ে বেশি উল্লসিত হওয়ার সুযোগ নেই। আমরা চূড়ান্ত রায়ের অপেক্ষায় আছি। এই রায় মিয়ানমার কীভাবে নেবে সেটি দেখার অপেক্ষায় আছি। কারণ তারা ইতোমধ্যে অন্তর্বর্তীকালীন রায় নিয়ে নানা ধরনের কটাক্ষ বক্তব্য রাখছে। খালেদা জিয়ার বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আগে আমরা জানতে চাই বিএনপির বিশেষ আবেদনটা কী? সেটা জানার পর আমরা কথা বলব।