ঢাকা   রবিবার ০৫ এপ্রিল ২০২০ | ২২ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

মুজিব অন্ধভক্ত রুস্তম আলীর আকাঙ্খা মিটালেন প্রধানমন্ত্রী

Logo Missing
প্রকাশিত: 04:04:42 pm, 2020-03-14 |  দেখা হয়েছে: 34 বার।

মোহাম্মদ আলী:

৫২র ভাষা আন্দোলনের সময় আমি মেলান্দহ উমির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র। ২১ ফেব্রæয়ারী ঢাকায় পুলিশের গুলিতে সালাম, রফিক, বরকতরা নিহত হওয়ার কয়েকদিন পর মহকুমা ছাত্রলীগের আহবাণে আমরা, জামালপুর সিংহজানি স্কুল ও নান্দিনা স্কুলের ছাত্ররা জামালপুরের ফুলতলা রেলওয়ে মাঠে আমরা গায়েবী জানাযা পড়েছি। তখন থেকেই আমি আওয়ামী লীগ বা মুজিবের প্রেমে পড়ে যাই। তারপর থেকে বঙ্গবন্ধু যেখানে মিটিংএ যেতেন খবর পেলে সেখানেই ছুটে যেতাম। হউক সে জামালপুর, ঢাকা, পাবনা, সিরাজগঞ্জ বা রংপুর। ঢাকায় কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ যে অনুষ্ঠানে শেখ মুজিবকে বঙ্গবন্ধু উপাধি দিয়েছিলেন সে অনুষ্ঠানে সরাসরি উপস্থিত থাকারও সুযোগ হয়েছিল আমার। তারপরেও আমার প্রাণপ্রিয় নেতার কাছে থেকে সান্নিধ্য পাওয়া বা তাঁর সাথে সরাসরি কথা বলার সৌভাগ্য হয়নি। এটা ছিল আমার সারা জীবনের আফসোস। যেটা সম্প্রতি মুজিব কন্যা মিটিয়েছেন।

মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধু ও তার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তৃপ্ততার সুরে উপরের কথাগুলো বলেন, জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের অন্ধভক্ত, ৫২ ভাষা আন্দোলন, ৫৪র যুক্তফ্রন্টের নির্বাচন ৬৬র ৬দফা ৫৮র আইয়ুব বিরোধী আন্দোলন, ৬৯র গণ অভ্যুত্থান, ৭০র সাধারন নির্বাচন ও ৭১এর আন্দোলন সংগ্রামে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অংশগ্রহণকারী, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, বঙ্গমাতা শেখ ফজিতুন্নেছা প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের জমিদাতা, মেলান্দহ উপজলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা, গবিন্দপুর গ্রামের আলহাজ্ব রুস্তম আলী ঠিকাদার (৮৬)।
অতিসম্প্রতি, তিনি মুজিব কন্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী, বঙ্গবন্ধুর প্রতি আওয়ামী লীগের প্রতি তথা দেশের প্রতি তার আন্দোলন সংগ্রাম ও ত্যাগের কথা মুগ্ধতায় (১৭ মিনিট) দাঁড়িয়ে শুনেছেন। সব শুনে প্রধানমন্ত্রী কৃতজ্ঞতায় তাঁকে বার বার জিজ্ঞেস করেছেন, আপনার কোনো চাওয়া পাওয়া আছে কি না? তিনি বিনয়ের সঙ্গে তা প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, আমি আপনার বাবার সাথে সরাসরি দেখা করার বা কথা বলার সুযোগ পাইনি। এটা আমার সারাজীবনের আফসোস ছিল। আপনার সাথে দেখা করে কথা বলে আমার সেই আফসোস বা আকাঙ্খা মিটেছে। আমি এতেই খুশি। মহান আল্লাহ আপনাকে দীর্ঘজীবি করুন।

এ সময় প্রবীণ রাজনীতিক রুস্তম আলী ঠিকাদারের জামাতা, জামালপুর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল সঙ্গে ছিলেন।