ঢাকা   রবিবার ৩১ মে ২০২০ | ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  জামালপুরে ৬শ অসহায় পরিবারকে বিজিবির ত্রাণ বিতরণ (জামালপুরের খবর)        জামালপুরবাসীর স্বাস্থ্যসেবায় নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই: আশরাফুল ইসলাম বুলবুল (জামালপুরের খবর)        করোনা দুর্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের সমস্যা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন-মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)        গন্তব্যে পৌছবে কি ছানুর নৌকা (জামালপুরের খবর)        বেতন ও বোনাসের টাকায় ঈদ সামগ্রী নিয়ে দেড়শ মধ্যবিত্ত পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন কিরন আলী (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে ভাগ্য বিড়ম্বিত শিশুদের মাঝে ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। (জামালপুরের খবর)        জামালপুরে তরুনদের সহায়তায় দুইশত পরিবারের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ (জামালপুরের খবর)        ময়মনসিংহে ৩শ দরিদ্র পরিবারের মাঝে সেনা প্রধানের ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন আর্টডক সদস্যরা (ময়মনসিংহ)        করোনা যোদ্ধা নার্সিং সুপারভাইজার শেফালী দাস শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন (ময়মনসিংহ)        বিদ্যানদীর মত সকল সামাজিক সংগঠন যদি এই দুর্যোগের সময়ে এগিয়ে আসে তবে সরকারের উপর চাপ অনেকংশে কমে যাবে -মির্জা আজম এমপি (জামালপুরের খবর)      

জামালপুরে ই-জোন মাঠে ধর্মসভা

Logo Missing
প্রকাশিত: 10:16:56 pm, 2018-11-02 |  দেখা হয়েছে: 1 বার।

এম. এ. রফিক : জামালপুরের ই-জোন মাঠে ইজতেমা ইজতেমার বদলে অনুষ্ঠিত ধর্মসভা বিদেশী মেহমানদের বয়ানে শুরু হয়ে আখেরী মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে গতকাল শেষ হয়েছে। জানা গেছে, জেলার দক্ষিণাঞ্চলের দিগপাইত ইউনিয়নের আদর্শ বটতলায় নির্মানাধীন জামালপুর অর্থনৈতিক জোন মাঠে জেলা ইজতেমা বদলে ধর্মসভা তাবলীগ জামাত নিজাম উদ্দিন অনুসারী (মূল ধারা) এর ব্যবস্থাপনায় গত বৃহষ্পতিবার বাদ আসর শুরু হয়ে গতকাল শুক্রবার বাদ আসর আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়েছে। নিজাম উদ্দিন অনুসারীদের প্রতিপক্ষ ইজতেমা প্রতিরোধ কমিটির ব্যানারে জেলা শহরে ইজতেমা বন্ধের দাবীতে সমাবেশ ও মিছিল করে। তার প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসন এক আদেশ পত্র জারী করেন। ওই আদেশ পত্র মোতাবেক এই ধর্মসভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুমতি মোতাবেক সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেন আয়োজকরা। আয়োজক কমিটির সাথে কথা বলে জানা যায় জামালপুর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে আগত বিপুল সংখ্যক মুসল্লীরা এই ধর্মসভায় আসেন। এই ধর্ম সভা সফল করতে কয়েকটি উপকমিটি গঠন করা হয়েছিল। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ভান্ডার জামাত, জোরনেওয়ালা জামাত, পাহারা জামাত, সাফায় জামাত, ইনফাক জামাত, বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনা জামাত, পানি ব্যবস্থাপনা জামাত, জিকিরের জামাত, খেদমতি জামাত উল্লেখযোগ্য। সেই সাথে আগত মুসল্লীদের জন্য বিশাল আকারের প্যান্ডেল করা হয়েছে। সুপেয় পানির জন্য ৩০টি টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়েছে, পাঁচশতাধিক স্যানেটারী ও প্রস্রাব খানা নির্মাণ করা হয়েছে। হঠাৎ কোন মুসল্লী অসুস্থ হয়ে পড়লে তার চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে সার্বক্ষনিক মেডিকেল টিমের ব্যবস্থা ছিল। আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ কন্টোল রুম যথাযথ দায়িত্ব পালন করেছেন। কর্তৃপক্ষ ও উপস্থিত মুসল্লীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এই ধর্মসভায় ভারত ও ইন্দোনেশিয়া থেকে আগত মুরুব্বীরা বয়ান করেছেন, সেই সাথে অসংখ্য জামাত বের হয়ে দেশে বিদেশে ধর্মের কাজে সফরে চলে গেছে। স্থানীয়রা জানান, এই ধর্মসভাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন দোকানের পসরাও বসেছে। পাশ্ববর্তী প্রায় ২/১ কিলোমিটারের মধ্যে অনেক অস্থায়ী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছিল।

Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!
Image Not Found!