ঢাকা   রবিবার ১৮ অগাস্ট ২০১৯ | ৩ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Image Not Found!

সর্বশেষ সংবাদ

  অবসরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া (বিবিধ)        খুলনা রেলওয়ে থানায় নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ, তদন্তে কমিটি (খুলনা)        গাজীপুরে মশার ২৫ টন ওষুধ আমদানি করা হয়েছে: মেয়র জাহাঙ্গীর (জেলার খবর)        ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে দুই হাজারের বেশি ডেঙ্গু রোগী (জাতীয়)        কুষ্টিয়ায় মাদক মামলায় একজনের যাবজ্জীবন (জেলার খবর)        ফের হাইকোর্ট ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন আবেদন (আইন ও বিচার)        আগামী বছর থেকে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ করা হবে: কৃষিমন্ত্রী (কৃষি ও প্রকৃতি)        দেশের সব ক্ষেত্রে সমন্বিত উন্নয়ন হচ্ছে: শিল্পমন্ত্রী (জাতীয়)        দুর্নীতির মামলায় নোয়াখালী জেলা জজ আদালতের নাজির গ্রেফতার (জেলার খবর)        খালেদার ২ মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি ১ সেপ্টেম্বর (আইন ও বিচার)      

ভেনেজুয়েলায় মার্কিন সামরিক হস্তক্ষেপ একটি বিকল্প: ট্রাম্প

Logo Missing
প্রকাশিত: 08:35:35 pm, 2019-02-04 |  দেখা হয়েছে: 2 বার।

আজ ডেক্সঃ ভেনেজুয়েলায় মার্কিন সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাবনাকে ‘একটি বিকল্প’ হিসেবে দেখছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। দেশটির সমাজতান্ত্রিক নেতা নিকোলাস মাদুরোকে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে পশ্চিমা দেশগুলোর চাপ বৃদ্ধির মধ্যে রোববার এক সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অপরদিকে ভেনেজুয়েলার মিত্র রাশিয়া ‘ধ্বংসাত্মক অনধিকারচর্চা’ থেকে বিরত থাকতে সবাইকে সতর্ক করেছে বলে খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। গত বছরের শেষ দিকে বিতর্কিত এক নির্বাচনে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন মাদুরো। দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নেওয়ার পর থেকে মাদুরোবিরোধী বিক্ষোভ করছে দেশটির বিরোধীদলগুলো। এরই একপর্যায়ে নিজেকে ভেনেজুয়েলার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ বলে ঘোষণা করেছেন বিরোধীদলীয় নেতা ও পার্লামেন্ট প্রধান হুয়ান গুইদো। এ ঘোষণা দেওয়ার পরপরই মাদুরেকে অস্বীকার করে স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট গুইদোকে স্বীকৃতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনাসহ বেশ কয়েকটি দেশ। ‘ফেইস দ্য ন্যাশন’ সাক্ষাৎকারে সিবিএসকে ট্রাম্প বলেছেন, ভেনেজুয়েলায় মার্কিন সামরিক হস্তক্ষেপের বিষয়টি বিবেচনাধীন আছে। ট্রাম্প বলেছেন, “নিশ্চিতভাবেই, এটি এমন বিষয় যা আছে-এটি একটি বিকল্প।” কয়েক মাস আগে মাদুরো একটি বৈঠকের অনুরোধ জানিয়েছিলেন বলেও জানান তিনি। “আমি সেটি প্রত্যাখ্যান করি কারণ এই প্রক্রিয়ায় আমাদের অবস্থান বহু দূরে, তাই প্রক্রিয়াটি চলতে থাকুক বলে ভেবেছি আমি,” বলেছেন ট্রাম্প। গত সপ্তাহে ট্রাম্পের প্রশাসন ভেনেজুয়েলার রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পিডিভিএসএ-র বিরদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এই প্রতিষ্ঠানটি ভেনেজুয়েলার রাজস্ব আয়ের প্রধান উৎস। এর আগে থেকেই দেশটি ওষুধ সংকটে ও পুষ্টি সমস্যায় ভুগছিল। মাদুরোর শাসনকালে ভেনেজুয়েলায় অর্থনৈতিক সংকট শুরু হয় এবং দেশটির লাখ লাখ লোক বিদেশে পালিয়ে যায়। এসব সত্বেও তিনি রাশিয়া, চীন ও তুরস্কের মতো কয়েকটি প্রভাবশালী দেশের সমর্থনসহ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সামরিক বাহিনীর সমর্থনও ধরে রেখেছেন। সাম্প্রতিক সময়ে ভেনেজুয়েলাকে সবচেয়ে বেশি ঋণ দাতা মিত্র দেশ রাশিয়া সবাইকে সংযত থাকার আহ্বান জানিয়েছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের লাতিন আমেরিকা বিষয়ক বিভাগের প্রধান আলেকজান্দর শিটিনিন বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে বলেছেন, “আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের লক্ষ হওয়া উচিত (ভেনেজুয়েলার) সীমান্তে বাইরে থেকে ধ্বংসাত্মক অনধিকারচর্চা ছাড়াই একে সাহায্য করা।”