Friday, December 2, 2022
Homeজাতীয়অমিত হাবিবের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

অমিত হাবিবের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

দৈনিক দেশ রূপান্তর পত্রিকার সম্পাদক ও বিশিষ্ট সাংবাদিক অমিত হাবিবের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।


দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদক অমিত হাবিব বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) রাত ১১টায় নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

 বিষয়টি নিশ্চিত করে দেশ রূপান্তরের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা মামুন বলেন, শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় গত তিন দিন আগে বিআরবি হাসপাতাল থেকে নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু তারপরও অবস্থা খারাপ হতেই থাকে। অবশেষে তিনি আমাদের ছেড়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন।


তিনি বলেন, গত ২১ জুলাই স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বিআরবি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অমিত হাবিবকে। অফিস চলাকালে তিনি স্ট্রোক করেন। শুনেছি আগেও তিনি একবার স্ট্রোক করেছিলেন।

১৯৮৭ সালে খবর গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সে একই সঙ্গে রিপোর্টার ও সাব-এডিটর হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন অমিত হাবিব। পরে সাপ্তাহিক পূর্বাভাস পত্রিকায় সাব-এডিটর পদে যোগ দেন তিনি। পরে ১৯৯১ সালে দৈনিক আজকের কাগজ পত্রিকায় সিনিয়র সাব-এডিটর হয়ে যোগ দেন। এর পরের বছর একই পদে যোগ দেন দৈনিক ভোরের কাগজে। অল্প দিনের মধ্যে পদোন্নতি পেয়ে যুগ্ম বার্তা সম্পাদক ও পরে বার্তা সম্পাদক হন তিনি।

২০০৩ সালে দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকায় প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন খ্যাতিমান এই সাংবাদিক। তবে পত্রিকাটি বাজারে আসে ২০০৬ সালে। ২০০৭ সালে চীনের আন্তর্জাতিক বেতারে বিদেশি বিশেষজ্ঞ হিসেবে যোগ দিয়ে পেইচিংয়ে কর্মরত থাকা অমিত হাবিব দেশীয় সাংবাদিকতার সঙ্গে দূরত্বের কথা বিবেচনায় তা ছেড়ে দেশে ফিরে আসেন।

পরের বছর দৈনিক সমকালে প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন তিনি। দৈনিক সমকালের প্রধান বার্তা সম্পাদকের পদ ছেড়ে ২০০৯ সালে কালের কণ্ঠে নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। পরে ২০১৩ সাল থেকে উপদেষ্টা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন অমিত হাবিব। সবশেষ ২০১৭ সালে দৈনিক দেশ রূপান্তরের সম্পাদক হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন অমিত হাবিব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments