Tuesday, June 28, 2022
Homeবিনোদনইতিহাস গড়লো ‘রেহানা মরিয়ম নূর’

ইতিহাস গড়লো ‘রেহানা মরিয়ম নূর’

আ.জা. বিনোদন:

ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশের সিনেমা, ইতিহাস গড়লেন বাংলাদেশের নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ। তার পরিচালিত ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ চলচ্চিত্রটি স্থান পেয়েছে কান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশনে। বাংলাদেশি কোনো ছবির এমন অর্জন এটাই প্রথম। ফলে এর পোস্টারে শোভা পাবে কানের সম্মানজনক লোগো। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ রয়েছে আঁ সার্তে রিগার্দ শাখায়। কানের প্রতিযোগিতা বিভাগের পরেই এটি গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের কোনো ছবি এবারই প্রথম এতে জায়গা করে নিলো। ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের ইউজিসি নর্ম্যান্ডি প্রেক্ষাগৃহে বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় কান উৎসবের ৭৪তম আসরে নির্বাচিত ছবির তালিকা ঘোষণা করা হয়। এ আয়োজনে ছিলেন উৎসবের জেনারেল ডেলিগেট থিয়েরি ফ্রেমো ও সভাপতি পিয়েরে লেসকিউর। সংবাদ সম্মেলনটি সরাসরি দেখানো হয় কানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট, ইউটিউব, ফেসবুক, টুইটার ও ডেইলি মোশন অ্যাকাউন্টে। ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ ছবিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন আজমেরী হক বাঁধন। তিনি ও পরিচালক সাদ কান উৎসব আয়োজকদের ঘোষণার পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অভিনন্দনে সিক্ত হচ্ছেন। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের দ্বিতীয় ছবি ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। এর চিত্রনাট্য ও সম্পাদনা তারই।

প্রাইভেট মেডিকেল কলেজের শিক্ষক রেহানা মরিয়ম নূরকে কেন্দ্র করেই এর গল্প। রেহানা একজন মা, মেয়ে, বোন ও শিক্ষক হিসেবে জটিল জীবনযাপন করে। এক সন্ধ্যায় কলেজ থেকে বেরোনোর সময় রেহানা একটি অপ্রত্যাশিত ঘটনার সাক্ষী হয়। এরপর থেকে সে এক ছাত্রীর পক্ষ হয়ে সহকর্মী এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন এবং ক্রমে একরোখা হয়ে ওঠেন। কিন্তু একই সময়ে তার ৬ বছর বয়সী মেয়ের বিরুদ্ধে স্কুল থেকে রূঢ় আচরণের অভিযোগ ওঠে। এমন অবস্থায় অনড় রেহানা তথাকথিত নিয়মের বাইরে থেকে সেই ছাত্রী ও তার সন্তানের জন্য ন্যায়বিচারের খোঁজ করতে থাকেন। এ সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন সাবেরী আলম, আফিয়া জাহিন জায়মা, আফিয়া তাবাসসুম বর্ণ, কাজী সামি হাসান, ইয়াসির আল হক, জোপারি লুই, ফারজানা বীথি, জাহেদ চৌধুরী মিঠু, খুশিয়ারা খুশবু অনি, অভ্রদিত চৌধুরী। এর আগে ২০১৬ সালে ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ ছিলো আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের প্রথম কাহিনিচিত্র। তার দ্বিতীয় ছবি ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ তৈরি হয়েছে পোটোকল ও মেট্রো ভিডিওর ব্যানারে। এটি প্রযোজনা করেছেন সিঙ্গাপুরের প্রযোজক জেরেমি চুয়া। ছবিটি সহ-প্রযোজনা করেছে সেন্সমেকারস প্রডাকশন। ছবিটির আন্তর্জাতিক পরিবেশনার জন্য পরিচালক-প্রযোজকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে জার্মান ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ফিল্মস বুটিক। প্রসঙ্গত, ২০০২ সালের ৫৫তম কান চলচ্চিত্র উৎসবের প্যারালাল বিভাগ ডিরেক্টর’স ফোর্টনাইটে নির্বাচিত হয় প্রয়াত নির্মাতা তারেক মাসুদের ‘মাটির ময়না’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments