Thursday, March 4, 2021
Home শিক্ষা এইচএসসি সার্টিফিকেটের সঙ্গে ফরমপূরণের অর্থও ফেরত

এইচএসসি সার্টিফিকেটের সঙ্গে ফরমপূরণের অর্থও ফেরত

আ.জা.ডেক্সঃ

অবশেষে চলতি বছরের উচ্চমাধ্যমিক(এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফরমপূরণের অর্থ ফেরত দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো। পরীক্ষা বাতিল হওয়ায় এ-সংক্রান্ত কাজে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় হয়েছে তা বাদ দিয়ে অবশিষ্ট অর্থ ফেরত দেয়া হবে। সার্টিফিকেটের সঙ্গে এ অর্থ ফেরত দেয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। জানা গেছে, এইচএসসির ফরম পূরণের জন্য গত বছরের নভেম্বরে কেন্দ্র ফিসহ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের দুই হাজার ৫০০ টাকা, মানবিক ও বাণিজ্য শাখার শিক্ষার্থীদের এক হাজার ৯৪০ টাকা করে ফি দিতে হয়েছে। এর মধ্যে বিজ্ঞানে কেন্দ্র ফি (ব্যবহারিক ফিসহ) ৮০৫ টাকা এবং মানবিক ও বাণিজ্যে ৪৪৫ টাকা করে ফি নেয়া হয়। পরীক্ষা আয়োজনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও সেটি বাতিল হওয়ায় কিছু অর্থ জমা রয়েছে। বর্তমানে সে অর্থ শিক্ষার্থীদের ফেরতের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের সভাপতি অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক গতকাল বুধবার বলেন, এইচএসসি পরীক্ষা আয়োজনে আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। এতে আমাদের অধিকাংশ অর্থ ব্যয় হয়েছে। অবশিষ্ট অর্থ শিক্ষার্থীদের ফেরত দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, উত্তরপত্র তৈরি, কেন্দ্র বুকিং, ফরমপূরণ, এডিমিট কার্ড ও সার্টিফিকেট বিতরণ করব। এ বাবদ অধিকাংশ অর্থ ব্যয় হবে। যেহেতু পরীক্ষা বাতিল হয়েছে তাই উত্তরপত্র মূল্যায়ন ও ব্যবহারিক পরীক্ষা নেয়া হবে না। এ বাবদ যে পরিমাণে অর্থ রয়েছে তা শিক্ষার্থীদের ফেরত দেয়া হবে। শিক্ষার্থীরা কত টাকা পেতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু অধিকাংশ অর্থ ব্যয় হয়েছে, তাই খুব বেশি অর্থ ফেরত দেয়া সম্ভব হবে না। ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা ফেরত দেয়া সম্ভব হতে পারে। তার মধ্যে বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা তুলনামূলক একটু বেশি ফেরত পাবে। আমরা হিসাব-নিকাশ কষে দেখছি। আমাদের কাছে যতটুকু রয়েছে তার পুরোটাই ফেরত দেয়া হবে। তিনি বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট স্ব স্ব কলেজে পাঠানো হবে। তার সঙ্গে অবশিষ্ট অর্থ পাঠানো হবে। সার্টিফিকেটের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের অর্থ ফেরত দেয়া হবে। সারাদেশে ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ও মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এ বছর উচ্চমাধ্যমিকও সমমানের পরীক্ষার্থী ছিল ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ জন। এর মধ্যে নিয়মিত পরীক্ষার্থী ১০ লাখ ৭৯ হাজার ১৭১ জন আর অনিয়মিত পরীক্ষার্থী ছিল ২ লাখ ৬৬ হাজার ৫০১ জন। পরীক্ষায় অংশ নিতে শিক্ষা বোর্ডে নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে ফরম পূরণ করতে হয় শিক্ষার্থীদের। হিসাব করে দেখা গেছে, ১৩ লাখ ৬৫ হাজার ৭৮৯ জন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে পরীক্ষার ফরম পূরণ বাবদ প্রায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা নিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

দন্ডিতকে দিয়ে সুবর্ণজয়ন্তী উদ্বোধন মুক্তিযুদ্ধের প্রতি অসম্মান: কাদের

আ.জা. ডেক্স: বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উদ্বোধন করেছেন দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আওয়ামী লীগের...

মাত্র ৬ মাসে করের আওতায় আনা হয়েছে অর্ধলক্ষাধিক নতুন লিমিটেড কোম্পানি

আ.জা. ডেক্স: জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) দেশের সব লিমিটেড কোম্পানিকে করজালে আনতে ২০২০ সালের আগস্টে টাস্কফোর্স গঠন করে।...

দেশ-বিদেশে বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে

আ.জা. ডেক্স: বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের চাহিদা দেশ-বিদেশে ক্রমেই বাড়ছে। বর্তমানে শুধুমাত্র দেশের স্থানীয় বাজারে প্রতি বছর ৪শ কোটি...

দলের সামর্থ্য নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই: তামিম

আ.জা. স্পোর্টস: নিউজিল্যান্ডের মাটিতে আজ অবধি বাংলাদেশের কোনো জয়ের রেকর্ড না থাকলেও বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবালের...

Recent Comments