Thursday, December 1, 2022
Homeআন্তর্জাতিকএবার ইউক্রেনীয় সেনাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ রাশিয়ার

এবার ইউক্রেনীয় সেনাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ রাশিয়ার

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর ৯২ সদস্যের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ এনেছে মস্কো। যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক রাশিয়ার একটি তদন্ত কমিটির প্রধান একথা জানিয়েছেন। এছাড়া এ সংক্রান্ত আরও এক হাজারেরও বেশি অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।

সোমবার (২৫ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে রাশিয়ার তদন্ত কমিটির প্রধান হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন আলেকজান্ডার বাস্ত্রিকিন।


রাশিয়ার সরকারি নিউজ সাইট রসিসকায়া গাজেটাকে তিনি বলেছেন, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর ৯২ সদস্যের বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ এনেছে মস্কো। এর পাশাপাশি এ সংক্রান্ত ১ হাজার ৩০০টিরও বেশি অপরাধমূলক ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বিবিসি বলছে, বলিভিয়া, ইরান এবং সিরিয়াসহ আরও বেশ কিছু দেশের সমর্থিত একটি আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের প্রস্তাবও করেছেন আলেকজান্ডার বাস্ত্রিকিন। তিনি বলেছেন, ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর ৫১ জন কমান্ডারসহ প্রায় ৯৬ জনকে খুঁজছে তার দেশ।


রুশ ওই সংবাদপত্রকে তিনি বলেন, (অভিযুক্ত) ইউক্রেনীয়রা ‘মানবতার শান্তি ও নিরাপত্তার বিরুদ্ধে অপরাধে’ জড়িত রয়েছে।

অবশ্য রাশিয়ার সরকারি ওই নিউজ সাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আলেকজান্ডার বাস্ত্রিকিনের করা দাবিগুলো যাচাই করতে পারেনি বিবিসি এবং এ বিষয়ে কিয়েভও কোনো মন্তব্য করেনি।

এছাড়া (রুশ সেনাদের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ এনে) ইউক্রেনও তাদের নিজস্ব তদন্ত পরিচালনা করছে। চলতি মাসে ইউক্রেন জানায়, গত ফেব্রুয়ারিতে আক্রমণ শুরুর পর থেকে রাশিয়ান বাহিনীর সংঘটিত ২১ হাজারের বেশি যুদ্ধাপরাধ এবং আগ্রাসনের অপরাধ পরীক্ষা করছে কিয়েভ।

অপরদিকে ইউক্রেনকে ‘অপরাধস্থল’ হিসাবে আখ্যা দেওয়া ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্ট (আইসিসি) পূর্ব ইউরোপের এই দেশটিতে তদন্তকারী এবং ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের একটি দল পাঠিয়েছে।

ক্রেমলিন অবশ্য ইউক্রেনের যেকোনো ধরনের যুদ্ধাপরাধের ঘটনা অস্বীকার করে আসছে। মস্কোর দাবি, রুশ সেনারা ইউক্রেনে বেসামরিক লোকদের লক্ষ্যবস্তু করছে না। রাশিয়া অভিযোগ করে আসছে, ইউক্রেন নিজেই নিজের অবকাঠামোতে গোলাবর্ষণ করছে এবং এভাবেই নিজস্ব বেসামরিক নাগরিকদের হত্যার করছে – তবে এসব অভিযোগ আন্তর্জাতিক নেতারা বরাবরই খারিজ করে আসছেন।

অন্যদিকে প্রকাশ্যে ‘ইউক্রেনীয় জাতীয়তাবাদ’কে পৃষ্ঠপোষকতার জন্য পশ্চিমাদেরকে অভিযুক্ত করেছেন আলেকজান্ডার বাস্ত্রিকিন। আর তাই ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের বিষয়ে জাতিসংঘ-সমর্থিত বিচার কর্মকাণ্ডকে ‘অত্যন্ত সন্দেহজনক’ হিসেবেও অভিহিত করেছে তিনি।

তবে জাতিসংঘের পরিবর্তে ‘ইউক্রেনীয় ইস্যুতে স্বাধীন অবস্থান রয়েছে’ এমন দেশগুলোতে – বিশেষ করে সিরিয়া, ইরান এবং বলিভিয়ায় একটি আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনাল গঠনের প্রস্তাব করেছেন বাস্ত্রিকিন।

শত শত ইউক্রেনীয় সামরিক ও রাজনৈতিক লক্ষ্যবস্তুর পাশাপাশি ইউক্রেনীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মচারীদের বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন আলেকজান্ডার বাস্ত্রিকিন। কোনো প্রমাণ না দিয়েই তাদের বিরুদ্ধে গণবিধ্বংসী অস্ত্র তৈরির অভিযোগ করেছেন তিনি।

এছাড়া যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, নেদারল্যান্ডস এবং জর্জিয়ার সন্দেহভাজন ভাড়াটে যোদ্ধাদের বিরুদ্ধেও তদন্ত চলছে বলে সংবাদপত্রকে জানিয়েছেন রাশিয়ার তদন্ত কমিটির এই প্রধান।

এর আগে গত জুন মাসে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর হাতে আটক তিন বিদেশি যোদ্ধাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়। মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রাপ্তদের দু’জন ব্রিটিশ এবং একজন মরক্কোর নাগরিক।

জুনের দ্বিতীয় সপ্তাহে রুশ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের স্বঘোষিত দোনেতস্ক প্রজাতন্ত্রের আদালত তাদের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments