Wednesday, August 12, 2020
Home জামালপুর গরু চড়ছে শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদে

গরু চড়ছে শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদে

মোহাম্মদ আলী:

গরু চড়ছে পরিষদ ভবনের সামনে, বাতাসে ছড়াচ্ছে মল মূত্রের দুর্গন্ধ। বারান্দায় রাখা হয়েছে গোরুর ঘাস, আরেক পাশে পাঠকাঠির স্তূপ, সিঁড়ির নিচে শুকনো লাকড়ী। সারা ভবনে ফাটল, দরজা জানালা ভাঙ্গা, লোহার গ্রীল রেলিং অকেজু। এমন চিত্র মেলান্দহ উপজেলার ১১নং শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের। দৃশ্য দেখে মনে হয়েছে পরিষদ ভবন তো নয় যেন গোরুর গোয়াল।

ইউনিয়ন পরিষদ অকার্যকর, ইউনিয়নবাসীর এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে রবিবার, সরেজমিন গেলে উপরের চিত্রের দেখা মিলে।

ইউনিয়নবাসী জানান, ২০০৩ সালে নির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ ভবনটি বেশ কয়েক বছর আগেই জড়াজীর্ণতায় অকার্যকর হয়ে পড়েছে। সেই সাথে অকার্যকর হয়ে পড়েছে পারিষাদিক কার্যক্রম। বয়োবৃদ্ধ চেয়ারম্যানের নিষ্কৃতা, চেয়ারম্যান মেম্বারদের অন্তরদ্বন্দ ও তাদের অর্থলিপ্সু মানসিকতায় পারিষাদিক সেবা থেকে আজ বঞ্চিত ইউনিয়নবাসী। ইউনিয়নবাসীর সামাজিক সমস্যা নিরসনে নেই বিচার শালিসির ব্যবস্থা, আইন শৃঙ্খলার অগ্রগতি, মাদক ও বাল্য বিবাহ রোধ সংক্রান্ত কোনো জনসচেতনামূলক কর্মকান্ড। করোনা ও বন্যার মতো ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়েও ইউনিয়ন পরিষদকে পাশে পায়নি ইউনিয়নবাসী। একটি জন্ম নিবন্ধনের জন্য দিনের পর দিন হয়রানি হতে হয় তাদেরকে। গ্রাম আদালতের কার্যক্রমও শুধু কাগজে কলমে। কার্যতঃ এর কোনো সুফল পাচ্ছেন না ইউনিয়নবাসী। রিলিফ বিতরণ ছাড়া শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদের আর কোনো কর্মকান্ড চোখে পড়ে না ইউনিয়নবাসীর। এ বিতরণের দিনেও দেখা দেয় বিশৃঙ্খলা।

সম্প্রতি, বিজিএফ বিতরণকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যান মেম্বারদের দ্বন্দের কারণে পরিষদের গুদামের দরজা লাথি মেরে ভেঙ্গে ফেলেছে পরিষদের মেম্বাররা। এছাড়া এলজিএসপি, কর্মসৃজন, স্বপ্ন ও যত্ন প্রকল্পে চেয়ারম্যান মেম্বারদের নানা দুর্নীতি অনিয়মের কাহিনী তুলে ধরেন ইউনিয়নবাসী।

এব্যাপারে শ্যামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি, খলিলুর রহমান মাষ্টার বলেন, শ্যামপুর ইউনিয়ন একটি অকার্যকর পরিষদ। এখান থেকে জনগণ কোনো সেবা পায় না। বরং সেবা প্রত্যাশিরা হয় হয়রানির শিকার।

শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যেক্তা জুয়েল রানা বলেন, জনগণের সেবা না পাওয়ার অভিযোগটি সত্য। সার্ভার ও পারিষাদিক জটিলতার কারণে আমরা কাঙ্খিত সেবা দিতে পারি না। গত ৩ মাসে এ পরিষদের পক্ষে থেকে জন্ম নিবন্ধন হয়েছে মাত্র ১৮টি।

গ্রাম আদালতের সহকারী সালমা জাহানের কাছে গ্রাম আদালতে সুফল ও অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি এলোমেলো জবাব দেন। গত ৬ মাসে কয়টি মামলা জমা পড়েছে, কয়টি নিষ্পত্তি হয়েছে, আর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে কয়টি? জানতে চাইলে তিনি বলেন, এর সঠিক হিসাব আমার কাছে নেই।

১১নং শ্যামপুর ইউপি চেয়ারম্যান, মোঃ সিরাতুজ্জামান সুরুজ বলেন, পারিষাদিক বা উন্নয়ন কর্মকান্ডে, স্থানীয় জনগণ, পরিষদ, দল ও প্রশাসন কারওরই সহযোগীতা পাই না। আমার বয়স এখন ৮৩। এই অবস্থায় ইচ্ছা থাকলেও অনেক কিছুই করতে পারি না। পরিষদের ভবনটি অনেক আগেই নষ্ট হয়ে গেছে। একটি মাত্র কক্ষ সচল। পূণঃ মেরামতের জন্য টাকা আসলেও ইঞ্জিয়ারদের কারণে তা ফেরৎ গেছে। আর পরিষদ ভবনটিও স্থাপিত হয়েছে একটি অসামাজিক এলাকায়। এরা আমাদেরকে রাখাল মনে করে। তাই পরিষদের সামনে গরু ছাগল বেধে রাখে যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সুর সম্রাট আলাউদ্দিন আলী আর নেই

আ.জা. ডেক্স: বিশিষ্ট সংগীত পরিচালক ও সুরকার আলাউদ্দিন আলী আর নেই। গতকাল রোববার রাজধানীর মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ...

সাবমেরিন ক্যাবলের সংযোগ বিচ্ছিন্ন, ইন্টারনেটে ধীরগতি

আ.জা. ডেক্স: পটুয়াখালী জেলার কুয়াকাটা এলাকায় অবস্থিত দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলস (এসএমডব্লিউই-৫) ল্যান্ডিং স্টেশনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় দেশজুড়ে...

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন: সিনহার বুকে-বাহুতে ৩ গুলি, আঘাতের একাধিক চিহ্ন

আ.জা. ডেক্স: কক্সবাজারে পুলিশের গুলিতে নিহত সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন র‌্যাবের কাছে জমা...

একাদশে ভর্তি কার্যক্রম শুরু

আ.জা. ডেক্স: চলমান করোনা পরিস্থিতির কারণে বিলম্বিত একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ৭টায়...

Recent Comments