Monday, February 26, 2024
Homeআন্তর্জাতিকগাজায় ত্রাণবাহী ট্রাকের প্রবেশ চালু রাখার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

গাজায় ত্রাণবাহী ট্রাকের প্রবেশ চালু রাখার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

গাজা উপত্যকায় ২য় দফা অভিযান চলাকালে সেখানে মানবিক ত্রাণবাহী ট্রাকগুলো প্রবেশে কোনো বাধা না দিতে ইসরায়েলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। শুক্রবার ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা জন কিরবি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাসভবন হোয়াইট হাউসে আয়োজিত সেই ব্রিফিংয়ে কিরবি বলেন, ‘আমরা ইসরায়েলকে বলেছি, অভিযানের চলাকালে গাজায় মানবিক ত্রাণ সরবরাহে যেন কোনো ছেদ না পড়ে। কারণ, এটা আমাদের সবারই স্বীকার করতে হবে যে, এই মুহূর্তে গাজায় বিপুল পরিমাণ মানবিক ত্রাণ সহায়তা প্রয়োজন।’

‘ইসরায়েল আমাদের আহ্বানে সায় দিয়েছে; তবে জানিয়েছে— বিরতির সময়ের তুলনায় এখন কম সংখ্যক ট্রাক প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও জানান, যুক্তরাষ্ট্র সবসময়ই বিরতির মেয়াদ বাড়ানোর পক্ষে। কারণ এখনও গাজা উপত্যকা নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাসের কব্জায় রয়েছেন শতাধিক জিম্মি। এই জিম্মিদের মধ্যে মার্কিন নাগরিকরাও রয়েছেন।

কিন্তু শুক্রবার সকাল থেকে গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান শুরু হওয়ার পর কার্যত শেষ হয়ে যায় অস্থায়ী ‍যুদ্ধবিরতি এবং শুক্রবারের ব্রিফিংয়ে এই বিরতিভঙ্গের জন্য হামাসকে দায়ী করেছেন কিরবি।

‘আমরা বিরতির মেয়াদ আরও বাড়াতে চেয়েছিলাম; কারণ বিরতির সঙ্গে জিম্মিদের মুক্তির ব্যাপারটি সরাসরি সম্পর্কিত। কিন্তু তা আপাতত সম্ভব হচ্ছে না এবং তার দায় সম্পূর্ণভাবে হামাসের।’

গত দেড় মাসের বেশি সময় ধরে যুদ্ধ চলার পর জিম্মি-বন্দি বিনিময় এবং গাজায় মানবিক ত্রাণ প্রবেশের সুযোগ দিতে ২৫ নভেম্বর সাময়িক যুদ্ধবিরতি চুক্তি করে ইসরায়েল এবং গাজা উপত্যকা নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাস। সেই বিরতি শেষ হয় শুক্রবার ভোরে উপত্যকায় ইসরায়েলি বিমান ও স্থলবাহিনীর অভিযান শুরুর মধ্যে দিয়ে। ২য় দফা অভিযানের শুরু থেকে এ পর্যন্ত গাজায় নিহত হয়েছেন ১৭৮ জন ফিলিস্তিনি।

অভিযান শুরুর আগে দেওয়া এক বিবৃতিতে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) জানিয়েছে, বিরতির শর্ত অনুযায়ী প্রতিদিন বিরতির এক একটি দিনে যেসব জিম্মিকে মুক্তি দেওয়া হবে— তাদের নামের তালিকা স্থানীয় সময় সকাল ৭ টার (বাংলাদেশ সময় বেলা ১১টা) আগে ইসরায়েলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করার কথা ছিল হামাসের।

কিন্তু বৃহস্পতিবার পর্যন্ত হামাস এই শর্ত মানলেও শুক্রবার নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও গোষ্ঠীটি সেই তালিকা সরবরাহ করেনি বলে জানিয়েছে আইডিএফ।

এছাড়া শুক্রবার ভোর রাতে ইসরায়েলের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর হিলটে রকেট হামলা ঘটে। সেই হামলার জন্য হামাসকে দায়ী করে শুক্রবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭ টা থেকে গাজায় দ্বিতীয় দফা অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি বিমান ও স্থল বাহিনী।

রয়টার্স

Most Popular

Recent Comments