Wednesday, June 26, 2024
Homeখেলাধুলাচাপের মুহূর্তে লিটনের সঙ্গে যে কথা হয়েছিল মেহেদীর

চাপের মুহূর্তে লিটনের সঙ্গে যে কথা হয়েছিল মেহেদীর

ঐতিহাসিক এক জয় দিয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করেছে বাংলাদেশ। ওয়ানডের পর তাদের মাটিতে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেটেও নাজমুল হোসেন শান্ত’র দল প্রথম জয় পেয়েছে। নিউজিল্যান্ডের দেওয়া তুলনামূলক সহজ লক্ষ্য তাড়ায় যদিও শেষদিকে কিছুটা চাপে পড়ে যায় সফরকারীরা। সেখান থেকে দায়িত্বশীল ব্যাটিং করা লিটন দাসকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন ম্যাচসেরা হওয়া শেখ মেহেদী। ওই পরিস্থিতিতে দুজন যে কৌশলে খেলেছেন, মেহেদী সেটাই জানিয়েছেন ম্যাচের পর।

নেপিয়ারে দ্বিতীয় ইনিংসে ৯৭ রানে পাঁচ উইকেট হারানোয় কিছুটা চাপে পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সেই চাপ সামলাতে লিটন-মেহেদীর ভালো বোঝাপড়ার দরকার ছিল। যা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসা মেহেদী জানান, ‘যেহেতু লিটন লম্বা সময় ধরে ব্যাটিং করতেছিল, উইকেট এবং ম্যাচ সম্পর্কে ওর ভালো আইডিয়া হয়ে গেছে। এই ম্যাচটা জিততে হলে হয়তোবা ছোট আরেকটা জুটি দরকার ছিল। যেহেতু আমাদের ভালো জুটি হচ্ছিল মাঝখানে আবার দুইটা তিনটা ব্রেকথ্রু চলে গেছে কিউইদের পক্ষে। সেখান থেকে কামব্যাক করতে লিটন বলতেছিল যে পজিটিভ থাক শুধু, নরমালি খেলে শেষ দুই ওভারে দেখা যাবে। এভাবেই কথা বলে আমরা খেলছিলাম।’

নেপিয়ারের এই উইকেটে ১৩৫ রান চেজ করা বেশ সহজ ছিল বলে জানান মেহেদী, ‘এইটা অবশ্যই ইজিলি চেজ করার মতো উইকেট ছিল। তারপরও গোল বলের খেলা, যেকোনো সময় মোমেন্টাম পরিবর্তন হয়ে যেতে পারে। একটা সময় প্রথম হাফে আমরাই আগাই ছিলাম। মাঝখানে আবার ওরা ব্যাক করছে। তারপরে ফিনিশ আবার আমরা ভালো টাচ দিছি, এমনই। খেলার ভেতর মোমেন্টাম পরিবর্তন হবে, এটাই ক্রিকেট।’

এই মাঠে স্পিনাররা কেমন সুবিধা পেয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে মেহেদী বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, আমাদের পেস বোলাররা সবাই মাশা-আল্লাহ ভালো করতেছে। একটা ম্যাচ জিততে সবার পারফর্মটা গুরুত্বপূর্ণ। এক দুইজনের পারফরম্যান্স দিয়ে হয় না। টিমের জন্য ছোটখাটো সবাই পারফর্ম করে, আলহামদুলিল্লাহ স্পিনাররাও ভালো করেছে। পেসাররা ভালো করেছে এজন্য তাদের কম রানে আটকাতে পেরেছি এবং জিততে পেরেছি।’

এসএইচ/এএইচএস

Most Popular

Recent Comments