Friday, July 23, 2021
Home জাতীয় দেশ-বিদেশে বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে

দেশ-বিদেশে বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে

আ.জা. ডেক্স:

বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের চাহিদা দেশ-বিদেশে ক্রমেই বাড়ছে। বর্তমানে শুধুমাত্র দেশের স্থানীয় বাজারে প্রতি বছর ৪শ কোটি টাকার হিমায়িত খাবার বিক্রি হচ্ছে। আর প্রতি বছর বিশ্ববাজারে বাংলাদেশ থেকে সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার হিমায়িত মাছজাতীয় খাবার রপ্তানি করা হচ্ছে। তার বাইরে বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশে তৈরি অন্য হিমায়িত খাবারের চাহিদাও বাড়ছে। দেশ-বিদেশে বাংলাদেশি হিমায়িত খাবারের জনপ্রিয়তা এক নতুন সম্ভাবনা তৈরি করছে। আর প্রতি বছর হিমায়িত খাদ্যের ব্যবসা ২৫ শতাংশ করে বৃদ্ধি পেলেও করোনাকালে তা ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, দ্রুত বদলে যাওয়া শহুরে জীবন, মানুষের আর্থিক সচ্ছলতা, কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রণ বৃদ্ধি, কর্মব্যস্ততা, খাবারের স্বাদে বৈচিত্র্য আসা, একক পরিবারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়াসহ বিভিন্ন কারণে দেশে হিমায়িত খাদ্যের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। আর বিশ্বে রয়েছে ১৫ থেকে ১৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের হিমায়িত খাদ্যের বাজার। তার মধ্যে বাংলাদেশের বাজারমূল্য ৬০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার হিমায়িত মাছ রপ্তানি করা হচ্ছে। তার মধ্যে চিংড়ি, সামুদ্রিক মাছ ও চাষের মাছ আছে। তবে বিশ্ববাজারে চাহিদা থাকা সত্তে¡ও বাংলাদেশ বর্তমানে মাত্র ২ শতাংশ পণ্য রপ্তানি করতে পারছে। কারণ দেশীয় বাজারের চাহিদা মেটানোর পরই তা বিদেশে রপ্তানি করা হচ্ছে। মোট রপ্তানির ৭৩.৪ শতাংশ হিমায়িত চিংড়ি। জাপান, ইউকে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে দিন দিন চিংড়ির চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। চিংড়ি ছাড়াও প্রক্রিয়াজাত বিভিন্ন খাবার যেমন- নদীর শুকনো ও হিমায়িত মাছ রপ্তানি হচ্ছে।

সূত্র জানায়, বর্তমানে দেশে মূলত ১২টি কোম্পানি স্ন্যাকস জাতীয় হিমায়িত খাবারের ব্যবসা করছে। দেশের চাহিদা মিটিয়ে ওই কোম্পানিগুলো বিদেশেও খাবার রপ্তানি করছে। হিমায়িত খাদ্য তৈরির ব্যবসায় জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লি., প্রাণ-আরএফএল গ্রুপ লি., এজি ফুড লি., ফ্রোজেন ফুড লি., বিডি সিফুড লি., কাজী ফার্মস গ্রুপ ইত্যাদি। সাধারণত হিমায়িত খাবারের মধ্যে আছে রেডি টু ইট, রেডি টু কুক, রেডি টু ড্রিংকসহ বিভিন্ন হিমায়িত পদ্ধতিতে প্রক্রিয়াজাত করা খাবার। হিমায়িত খাদ্যের মধ্যে মাছ ছাড়া আরো রয়েছে হিমায়িত ফল ও সবজি, রান্না করা হিমায়িত খাবার, হিমায়িত মিষ্টান্ন, হিমায়িত স্ন্যাকস। সাধারণত দেশে সুপার মার্র্কেট, বড় জেনারেল স্টোর, অনলাইনে ওসব খাবার বিক্রি হয়। মূলত অনলাইন থেকে সহজেই অর্ডার করার সুবিধা থাকায় মহামারীতে হিমায়িত খাদ্যের চাহিদা বেড়ে যায়। অনেকের মতে, বিকালের নাস্তায় ঝটপট কিছু তৈরি করে দিতে হিমায়িত খাবারের বিকল্প নেই। কম সময়ে তৈরি করার পাশাপাশি সাশ্রয়ী মূল্যে বিক্রি হওয়া ওসব হিমায়িত খাবার বাচ্চারাও বেশ পছন্দ করে। করোনা সংক্রমণের কারণে গত ২০২০ সালে হিমায়িত খাবারের বিক্রি ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। রাজধানী ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, কুমিল্লাসহ অন্যান্য শহরেও হিমায়িত খাবারের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিদেশেও এদেশের হিমায়িত খাবারের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে। হিমায়িত খাবারের মধ্যে ভেজিটেবল জাতীয় খাবার ও পরোটা রপ্তানি হচ্ছে। কানাডা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, মধ্যপ্রাচ্যের কিছু দেশে ওই খাবার রপ্তানি করা হচ্ছে। শুধুমাত্র গোল্ডেন হার্ভেস্ট বর্তমানে ১৯ থেকে ২০টি হিমায়িত খাবার রপ্তানি করছে।

সূত্র আরো জানায়, বর্তমানে বাংলাদেশ হিমায়িত চিংড়িসহ অন্যান্য হিমায়িত মাছ জাতীয় খাবারগুলো ইউকে, নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, জার্মানি, ইন্ডিয়া, ফ্রান্স, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, চীন, পর্তুগালে রপ্তানি করছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাংলাদেশ থেকে ৪৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রপ্তানি করা হয়।
এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি শেখ সোহেল পারভেজ জানান, হিমায়িত খাদ্যের মধ্যে এদেশ থেকে মাছ বেশি রপ্তানি করা হয়। তার একটি চিংড়ি আর বাকিগুলো অন্য প্রজাতির মাছ। রপ্তানি করা ৯০ শতাংশ পণ্যই চিংড়ি। সেগুলো রেডি টু কুক বা রেডি টু ইট জাতীয় পণ্য। এদেশের হিমায়িত খাবারের মূল বাজার হচ্ছে এখন ইউরোপের বিভিন্ন দেশ। আশা করা যায় পাইকগাছায় শিগগিরই ভেনামি চিংড়ির উৎপাদন শুরু হবে। তখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেও ওই চিংড়ি রপ্তানি করা যাবে। আর এদেশে যে কারখানাগুলো আছে তা আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখেই পণ্য রপ্তানি করে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইন্সপেকশন টিম এসে কারখানাগুলোর উৎপাদিত মাছ পরীক্ষা করে যায়। মৎস্য অধিদফতর থেকেও লাইসেন্স প্রতিবছর নবায়ন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

সবার জন্য ভ্যাকসিনের পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

আ.জা. ডেক্স: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করোনা প্রতিরোধকল্পে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর পুনরায় গুরুত্বারোপ করে পবিত্র ঈদুল আযহায় দেশের...

জামালপুরে করোনা প্রতিরোধে গো-হাটা ইজারাদারদের নিয়ে আলোচনা সভা

এম.এ রফিক: জামালপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শনিবার উপজেলা পরিষদে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গো-হাটা ইজারাদারদের সাথে...

মেলান্দহের ফুলকোচায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গাছ কর্তন

নিজস্ব সংবাদদাতা: জামালপুর জেলার মেলান্দহ থানার অন্তর্গত ৮নং ফুলকোচা ইউনিয়নের মুন্সি পাড়ায় বিজ্ঞ আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রায় লক্ষাধিক...

ইসলামপুরে ৫৯হাজার ৫৬৬টি পরিবারে ভিজিএফ বিতরণ

ওসমান হারুনী: জামালপুরের ইসলামপুরে পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে বন্যা/অন্যান্য দুর্যোগ/দু:স্থ/ীঅতিদরিদ্র ভিক্ষুক পরিবারের মাঝে ভিজিএফ কর্মসূচির আওতায় ইসলামপুর উপজেলার ১২টি...

Recent Comments