Saturday, January 22, 2022
Home অর্থনীতি দ্রুত বাণিজ্য সম্পন্নে অনলাইনে এলসি খোলার অবকাঠামো তৈরির উদ্যোগ

দ্রুত বাণিজ্য সম্পন্নে অনলাইনে এলসি খোলার অবকাঠামো তৈরির উদ্যোগ

আ.জা. ডেক্স:

দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য দ্রুত সম্পন্ন করতে ই-এলসি বা অনলাইনে এলসি খোলার অবকাঠামো তৈরির পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইনও সংশোধনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আর বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো অনলাইনে এলসি খোলার অবকাঠামো তৈরি করছে। সেজন্য বৈদেশিক বাণিজ্যের মূল ব্যাংকিং সফটওয়্যারগুলোতে আরো পরিবর্তন আনা হচ্ছে। ব্যাংকিং খাত সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, নতুন উদ্যোগে ব্যবসায়ীরা অফিসে বসেই ব্যাংকে অনলাইনে এলসি খুলতে পারবে। মূলত দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যকে আরো বৈদেশিক প্রতিযোগিতায় সক্ষম করে তুলতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমানে অনলাইন ব্যাংকিংয়ের আওতায় টাকা বা বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন করার সুযোগ থাকলেও এলসি খোলার সুযোগ নেই। বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইনের আওতায় বেশ কিছু বাধ্যবাধকতা রয়েছে। তার মধ্যে আবেদনকারীকে ব্যাংকে যেতেই হয়। তাছাড়া ই-এলসি খোলার জন্য ব্যাংকগুলোতে যথেষ্ট অবকাঠামোগত সুবিধাও নেই। যে কারণে ই-এলসি খোলা যাচ্ছে না। এলসিসংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের একাধিক কর্মকর্তাকে ব্যাংকে নিয়োজিত থাকতে হয়। তাতে একদিকে যেমন ব্যবসা খরচ বাড়ছে, তেমনি বেশি সময়ও লাগছে। অথচ ইতিমধ্যে অনেক দেশই ই-ব্যাংকিংয়ের পাশাপাশি ই-এলসিতে চলে গেছে। তাতে ওসব দেশের ব্যবসা খরচও কমেছে। এ প্রেক্ষিতে দেশে এমন ধরনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী বিদেশি ক্রেতারা সে দেশের ব্যাংকের মাধ্যমে বিশেষ করে ইউরোপ ও আমেরিকার দেশগুলো থেকে বাংলাদেশের ব্যাংকে ই-এলসি পাঠাচ্ছে। আর বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো থেকে ওসব এলসির তথ্য বা গ্রাহককে মেইলে বা মোবাইল ফোনে জানানো হচ্ছে। ওই এলসির বিপরীতে পণ্য রপ্তানির প্রক্রিয়াটি আর অনলাইনে সম্পন্ন হচ্ছে না। একই সঙ্গে এর বিপরীতে ব্যাক টু ব্যাক এলসি অনলাইনে খোলা যাচ্ছে না। ব্যাংকে গিয়ে বিভিন্ন কাগজপত্র ও সনদ দেখিয়ে খুলতে হচ্ছে। ই-এলসি কার্যক্রম শুরু হলে কাগজপত্র ও সনদ অনলাইনে ব্যাংকে পাঠিয়ে এলসি খোলা যাবে। শুধু আমদানি বাণিজ্যের জন্য একই প্রক্রিয়ায়ও ই-এলসি খোলা যাবে।

সূত্র জানায়, ক্ষেত্রে তদারকি বাড়ানোর জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রচলিত আইনি কাঠামোতে সংস্কার আনার উদ্যোগ নিয়েছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে ই-ব্যাংকিং ও ই-কমার্স লেনদেন নিবিড়ভাবে তদারকি করতে নতুন সফটওয়্যার ও তথ্য সংগ্রহের নতুন ফরম তৈরি করা হচ্ছে। তার মাধ্যমে ব্যাংকগুলো থেকে ই-এলসির তথ্য নিয়ে তদারকি তা তদারকি করা হবে। বর্তমানেও ভোগ্যপণ্য আমদানির এলসি অনলাইনে তদারকি করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

দেওয়ানগঞ্জে মোবাইল কোর্টে বিভিন্ন মামলায় জরিমানা

নিজস্ব সংবাদদাতা: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে ভেরিয়েন্ট ওমিক্রনের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে এক অভিযান পরিচালনা করেছেন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার...

জামালপুরে সিডস প্রকল্পের শিক্ষকদের বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: জামালপুরে উন্নয়ন সংঘের ‘মর্যদা ও স্থায়িত্বশীলতার সাথে আর্থ-সামাজিক ক্ষমতায়তন(সিডস)’ প্রকল্পের আওতায় চাইল্ড ক্লাব শিক্ষকদের ৫ দিনব্যপী বুনিয়াদী...

জামালপুরে হিজড়া জনগোষ্ঠীর পরিবার ও ব্যবসা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নে প্রশিক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: সমাজের সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠী হিজড়াদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় পরিবার ও ব্যবসা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নে প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।...

রাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে শীতার্তদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দিলেন মহিলা এমপি হোসনে আরা

ওসমান হারুনী: জামালপুর ও শেরপুর আসনের সংরক্ষিত আসনের মহিলা এমপি হোসনে আরা রাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে শীতার্তদের গায়ে কম্বল...

Recent Comments