Friday, January 28, 2022
Home জাতীয় নাগরিককে নিজ দেশ ফিরিয়ে না নেয়ায় কারাগারে বন্দি বিপুলসংখ্যক বিদেশী

নাগরিককে নিজ দেশ ফিরিয়ে না নেয়ায় কারাগারে বন্দি বিপুলসংখ্যক বিদেশী

আ.জা. ডেক্স:

বাংলাদেশের কারাগারগুলোতে বিপুলসংখ্যক বিদেশী নাগরিক বন্দি অবস্থায় দিনযাপন করছে। তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে ঢাকা থেকে বার বার তাগিদ দেয়া হলেও সংশ্লিষ্ট দেশগুলো ওসব বিদেশী নাগরিকদের ফিরিয়ে নিচ্ছে না। বর্তমানে পাসপোর্ট, ভিসা, শাস্তির মেয়াদ ফুরিয়ে যাওয়াসহ নানা আইনি জটিলতায় অন্তত ৭ শতাধিক বিদেশী নাগরিক দেশের বিভিন্ন কারাগারের বাইরে ও ভেতরে আটক রয়েছে। তাদের মধ্যে ৩৪৫ জন আত্মগোপন করে রয়েছে। পুলিশের মতে তারা লাপাত্তা। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে একাধিক বৈঠকে বিদেশী নাগরিকদের নিজ দেশে ফিরিয়ে দেয়ার বিশেষ উদ্যোগও নেয়া হয়েছে। এমনকি ওসব বিদেশী নাগরিকদের ফেরত পাঠানোর জন্য প্রয়োজনে প্রত্যাবাসন ফান্ড গঠনেরও উদ্যোগে নেয়া হয়েছে। কিন্তু অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাড়া না পাওয়ায় তা কার্যকর করা যাচ্ছে না। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সিআইডি অবৈধ বিদেশী নাগরিকদের কর্মকান্ড নিয়ে কাজ করছে। ওসব নাগরিকদের মধ্যে অনেকেই ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে এদেশে রয়েছে। তাদের বেশিরভাগই কারান্তরীণ। অবৈধ বিদেশী নাগরিকরা ভিসার মেয়াদ শেষ হবার পর পাসপোর্ট ছিড়ে ফেলে দেয়। তাদের বেশিরভাগই আফ্রিকান। তখন ওই বিদেশী কোন দেশের নাগরিক সেটাই চিহ্নিত করাই দুষ্কর হয়ে পড়ে। সেজন্য বর্তমানে ইমিগ্রেশন থেকে অবৈধ বিদেশীদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। ওই তথ্যগুলো পুলিশ সদর দফতরের মাধ্যমে ইন্টারপোলকেও অবহিত করা হবে। বাংলাদেশে ফুটবল খেলতে আসা খেলোয়াড়রাও অপরাধের সঙ্গে যুক্ত আছে। আন্তর্জাতিক কনভেনশন অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট দেশের সঙ্গে আলোচনা করে বিদেশীদের ফেরত পাঠাতে হয়। দাগি অপরাধীদের ক্ষেত্রে পুশব্যাক করার রীতিও চালু আছে। তবে করোনার কারণে তা বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশে ফরেনার্স এ্যাক্ট ১৯৪৬ অনুযায়ী, অবৈধভাবে বসবাসের জন্য গ্রেফতারের পর ৫ বছরের কারাদন্ডের বিধান আছে। আটক বিদেশী নাগরিকদের ফেরত পাঠাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে একটি ‘প্রত্যাবাসন ফান্ড’ গঠনেরও উদ্যোগ নেয়া হয়। এমনকি আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার একাধিক বৈঠকেও অবৈধ বিদেশীদের নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ওসব বৈঠকেই বিদেশীদের জন্য একটি ফান্ড তৈরি ও সেফ হোম তৈরি করতে নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। যা বাস্তবায়নের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধও করা হয়। কিন্তু তাতে এখনো সাড়া মিলছে না। মূলত অর্থাভাবেই বিদেশী নাগরিকদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো যাচ্ছে না।

সূত্র জানায়, গত ৪ মাসে সিআইডি, ডিবি, পিবিআই ও র‌্যাব বিভিন্ন অপরাধে যুক্ত থাকার অভিযোগে ৭৬ বিদেশীকে গ্রেফতার করেছে। তার আগে গত ৩ বছরে গ্রেফতারের সংখ্যা প্রায় ৪শ। এদেশে বসে বিদেশী নাগরিকরা ফেসবুকে উপহারের নামে প্রতারণা, হেরোইন, কোকেনসহ মাদক কারবার, ব্যাংকের এটিএম বুথের জালিয়াতি, বিভিন্ন দেশের জাল মুদ্রার কারবার, অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা, সোনা চোরাচালান, অনলাইনে ক্যাসিনো এবং মানবপাচারের মতো অপরাধে জড়িত। তারা নানা গ্রুপে ভাগ হয়ে অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়েছে। আবার তাদের নিয়ন্ত্রণেই আছে বেশকিছু সুন্দরী নারীও। ওসব নারীদের দিয়ে তারা ব্ল্যাকমেইলও করে থাকে। তাদের মধ্যে কেউ কেউ কাস্টম কর্মকর্তা সেজে বিমানবন্দরে প্রতারণা করছেন। আবার কেউ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলে নানা কারবার চালাচ্ছে। দুটি গোয়েন্দা সংস্থা যেসব বিদেশীর ভিসার মেয়াদ নেই তাদের একটি তালিকা করার কাজ প্রায় সম্পন্ন করে এনেছে। ওই তালিকাটি কয়েকদিনের মধ্যেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর কথা রয়েছে। তাছাড়া মন্ত্রণালয়ে ওই তালিকার আগে আরেকটি প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছিল। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ৭শ’ বিদেশীর ওয়ার্ক পারমিট নেই। তাদের দ্রুত নিজ দেশে ফেরত না পাঠালে বাংলাদেশে ক্ষতির সম্মুখীন হবে। তারা নানা অপকর্মে জড়িত। প্রতিবেদন পাওয়ার পর আইন প্রয়োগকারীর কয়েকটি সংস্থা আলাদাভাবে নজরদারি করছে। তাদের নজরদারির বিষয়টি আঁচ করে অবৈধ বিদেশীরা নিজেদের অবস্থান গোপন করছে। অনেকে পাসপোর্ট ছিড়ে ফেলে পরিচয় আড়াল করছে। ফলে চাইলেও তারা কোন্ দেশের নাগরিক তা শনাক্ত করা যাচ্ছে না।

সূত্র আরো জানায়, রাজধানীতে প্রায়ই বিদেশী নাগরিকরা ধরা পড়ছে। বেশিরভাগই প্রতারণার মতো অপরাধে জড়িত। তাদের মধ্যে বেশ ক’জন দাগী প্রতারক হিসেবেও চিহ্নিত। এদেশে তারা একটি সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র গড়ে তুলেছে। গত কয়েক বছর ধরে অবৈধ বিদেশী নাগরিকরা এদেশের লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছে। প্রতারণার কেক্ষেত্রে অভিনব পন্থায় তারা বিপরীত লিঙ্গের মাধ্যমে বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে ফেসবুকে বন্ধুত্ব তৈরি করে। বন্ধুত্বের একপর্যায়ে তারা মেসেঞ্জার থেকে একটি উপহার পাঠানোর প্রস্তাব দেয়। পরে মেসেঞ্জারে ওসব মূল্যবান সামগ্রীর এয়ারলাইন বুকিংয়ের ডকুমেন্ট পাঠায়। উপহারের বক্সে কয়েক মিলিয়ন ডলারের মূল্যবান সামগ্রী আছে বলে ভুক্তভোগীকে জানানো হয়। ওসব বিদেশী নাগরিকরা দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশে অবস্থান করলেও তাদের বেশিরভাগেরই ভিসার মেয়াদ নেই। তারা অত্যন্ত সুকৌশলে নিরীহ লোকদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। অবৈধ বিদেশীদের ধরে নিজ দেশে ফেরত পাঠাতেই হবে।

এদিকে অতিসম্প্রতি আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠকেও অবৈধ বিদেশীদের ব্যাপারে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা হয়েছে। যেভাবেই হোক অবৈধদের বাংলাদেশ থেকে তাড়িয়ে দিতে হবে। সেজন্যই প্রত্যাবাসন ফান্ড গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। আশা করা যায় খুব শিগগিরই ওই ফান্ড গঠন হয়ে যাবে। আর ফান্ড পাওয়া গেলেই তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানো খুব কঠিন হবে না।

অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল দৈনিক জানান, অবৈধ বিদেশীদের নিজ দেশে পাঠানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তাদের কিভাবে পাঠানো যায় তা নিয়ে আলোচনা চলছে। অনেক বিদেশী আছে তাদের ভিসার মেয়াদ নেই। তাদের খুঁজে বের করতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো কাজ করছে। গোয়েন্দাদের তথ্যানুযায়ী বাংলাদেশে অবস্থানরত ৭শ’ বিদেশী নাগরিকের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে। তারপরও তারা এদেশে অবস্থান করছে। তাদের ফিরিয়ে নিতে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। এ্যাম্বাসিগুলো যদি কোন উৎসাহ না দেখায় তাহলে এদেশের অপরাধ নিয়ন্ত্রণের জন্য বিদেশী অপরাধীদের জন্য পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অবৈধ বিদেশীরা প্রতারণা, মাদক ও জাল টাকার কারবারসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছে। তাদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিটি জেলার পুলিশ সুপারদের দিক-নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিশেষ করে আফ্রিকার নাগরিকরা বেশি বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তারা বেশি প্রতারণা করছে। ওসব অবৈধ বিদেশীদের নিজ দেশে পাঠাতে প্রত্যাবাসন ফান্ড করার চেষ্টা চলছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওই ফান্ডের বেশিরভাগ অংশের জোগান দেয়ার কথা রয়েছে। সেজন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছে। বিভিন্ন সময়ে গ্রেফতার হয়ে সাজা খেটেছে বিপুলসংখ্যক বিদেশী। কিন্তু তাদের এখনো নিজ দেশে ফেরত পাঠানো যায়নি। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে তাদের কারাগার থেকে বের করে নিজ দেশে পাঠানো হবে। তাছাড়া অবৈধ বিদেশীদের চিহ্নিত করে একটি নির্দিষ্ট এলাকায় সেফ হোমে রাখা হবে। পরে তাদের বাংলাদেশ সরকার নিজ টাকায় তাদের স্ব স্ব দেশে পাঠিয়ে দেয়ার কথা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

দেওয়ানগঞ্জে মোবাইল কোর্টে বিভিন্ন মামলায় জরিমানা

নিজস্ব সংবাদদাতা: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে ভেরিয়েন্ট ওমিক্রনের প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে এক অভিযান পরিচালনা করেছেন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার...

জামালপুরে সিডস প্রকল্পের শিক্ষকদের বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: জামালপুরে উন্নয়ন সংঘের ‘মর্যদা ও স্থায়িত্বশীলতার সাথে আর্থ-সামাজিক ক্ষমতায়তন(সিডস)’ প্রকল্পের আওতায় চাইল্ড ক্লাব শিক্ষকদের ৫ দিনব্যপী বুনিয়াদী...

জামালপুরে হিজড়া জনগোষ্ঠীর পরিবার ও ব্যবসা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নে প্রশিক্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: সমাজের সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠী হিজড়াদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় পরিবার ও ব্যবসা উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নে প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।...

রাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে শীতার্তদের গায়ে কম্বল জড়িয়ে দিলেন মহিলা এমপি হোসনে আরা

ওসমান হারুনী: জামালপুর ও শেরপুর আসনের সংরক্ষিত আসনের মহিলা এমপি হোসনে আরা রাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে শীতার্তদের গায়ে কম্বল...

Recent Comments