Thursday, April 25, 2024
Homeজামালপুরনিখোঁজের পর সেফটি ট্যাংকে শিক্ষার্থীর দেহ, দুই বন্ধু আটক

নিখোঁজের পর সেফটি ট্যাংকে শিক্ষার্থীর দেহ, দুই বন্ধু আটক

নিজস্ব সংবাদদাতা : জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে নিখোঁজের ৫ দিন পর টয়লেটের সেফটি ট্যাংক থেকে উজ্জ্বল মিয়া (১৫) নামে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উজ্জ্বল উপজেলার শেখ খলিলুর রহমান (ভোকেশনাল) ইনস্টিটিউট স্কুলের নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। গত রোববার ৩১ মার্চ বিকালে উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চরবালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহজনক ভাবে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- বালিয়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে আবু সাঈদ ও প্রবাসী শহিদুল ইসলামের ছেলে সাদ্দাম হোসেন। তারা দুজনই নিহত উজ্জ্বল মিয়ার বন্ধু। পুলিশ ও নিহতের পরিবার সুত্রে জানা যায় উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চর বালিয়া গ্রামের উসর আলীর ছেলে উজ্জ্বল মিয়া। গত বুধবার সন্ধায় ইফতারের পর মোবাইলে ফোন পেয়ে বাহিরের চলে যায়। রাতে বাড়ীতে না ফিরলে পরিবারের লোকজন আশেপাশে খোঁজতে থাকে। না পেয়ে পরের দিন থানায় অভিযোগ করেন তার বাবা। রবিবার দুপুরের বাড়ীর পাশে আপেল মিয়ার পরিত্যক্ত টয়লেটের সেফটি ট্যাংক থেকে বের দুর্গন্ধ হয়। পরে প্রতিবেশীরা টয়লেটের হাউজ খুলে উজ্জল মরদেহ দেখতে পায়। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহতের বাবা উসর আলী অভিযোগ করে বলেন, ‘ছেলে উজ্জ্বলকে বাড়ী থেকে ডেকে হত্যা করে টয়লেটের হাউজে রেখে দেয়। এ ঘটনায় বিচার দাবি করেন তিনি। এ-বিষয়ে জামালপুর সদর সার্কেল সোহরাব হোসেন বলেন, ‘গত ২৭ মার্চ আমাদের কাছে একটি অভিযোগ দিয়েছিলো একটি ছেলে নিখোঁজ হয়েছে। পরে আমরা তার অভিযোগ গ্রহণ করি এবং রাত্রি বেলা একটি ইমো নাম্বার থেকে ফোন দিয়ে টাকা দাবি করে। পরে সেই নাম্বারটা আমলে উদ্ধারের চেষ্টা করি। কিন্তু কিছুক্ষণ পর নাম্বারটি বন্ধ হয়ে যায়। তারপর বিভিন্নভাবে তদন্তের চেষ্টা চলছিল। আজ হঠাৎ করে তার লাশ একটি টয়লেটের পরিত্যক্ত সেফটি ট্যাংকে পাওয়া যায়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।

Most Popular

Recent Comments