Saturday, February 4, 2023
Homeস্বাস্থ্যফ্যাটি লিভার চিকিৎসায় ‘কালমেঘে’র ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু

ফ্যাটি লিভার চিকিৎসায় ‘কালমেঘে’র ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ফ্যাটি লিভারের চিকিৎসায় কালমেঘের (ভেষজ উদ্ভিদ) ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের উদ্যোগে এ ট্রায়ালের উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

বুধবার (১৮ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মিল্টন হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ট্রায়াল কার্যক্রম শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়টির হেপাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. আইয়ুব আল মামুনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের ডিভিশন প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল। এ সময় ট্রায়াল উপস্থাপন করেন বিভাগের রেসিডেন্ট ডা. মো. সাবিবর হোসেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ডা. মো. শরফুদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসা ক্ষেত্রে গবেষণার উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েও সাম্প্রতিক সময়ে এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির হেপাটোলজি বিভাগে হেপাটাইটিস বি রোগের নতুন আবিষ্কৃত ওষুধ ন্যাসভ্যাকের অধিকতর গবেষণার কাজ চলছে। কোভিডের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাইরাসটির ফুল জেনোম সিকুয়েন্সিং করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা বাজেট ৫ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে সম্প্রতি ২০ কোটি টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গবেষণায় উৎসাহিত করার জন্য প্রবর্তন করা হয়েছে ভাইস-চ্যান্সেলর পদক। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০ জনের অধিক পোস্টগ্রাজুয়েট চিকিৎসক পিএইচডি করছেন।

অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল তার মূল প্রবন্ধের জানান, বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পের ৭৪ মিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের বিপরীতে প্রতিবেশী ভারত প্রতি বছর আয়ুর্বেদ খাত থেকে উপার্জন করছে ৮০০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি। অথচ আমরা আমাদের এক সময়কার ঐতিহ্যবাহী আয়ুর্বেদ এবং হেকিমি চিকিৎসা শাস্ত্র হারিয়ে বসতে বসেছি।  আমাদের দেশে এই শাস্ত্রগুলোর ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা জ্ঞান আর এ দেশের স্থানীয় হার্বাল ওষুধগুলোকে বৈজ্ঞানিক উপায়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মাধ্যমে ঠিকমত উপস্থাপন করা সম্ভব হলে বাংলাদেশ অগ্রণী ভূমিকা নিতে পারবে।

তিনি আরও জানান, হার্বাল বিষয়ে কার্যকর গবেষণার জন্য তারা এরই মধ্যে জাপানের এহিমি বিশ্ববিদ্যালয় ও ওইতা বিশ্ববিদ্যালয়, ভারতের ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয় এবং দেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড রিসার্চ অ্যান্ড সায়েন্সেস, ফার্মেসি অনুষদ ও বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগ বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বোটানি বিভাগ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদ, ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ এবং রাজশাহী কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের সঙ্গে গবেষণা কোলাবরেশন গড়ে তুলেছেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মাসুদা বেগম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর অ্যাডভান্সড রিসার্চ অ্যান্ড সায়েন্সেসের চিফ সায়েন্টিস্ট ড. গাজী নুরুন নাহার সুলতানা ও প্রিন্সিপাল সাইন্টিস্ট ড. জাকির সুলতান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি এবং ফার্মাকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. ফিরোজ আহমেদ ও অধ্যাপক ড. শেখ জহির রায়হান প্রমুখ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments