Sunday, June 13, 2021
Home জামালপুর বকশীগঞ্জে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্ধ, আবাসিক ভবন গোডাউনে পরিনত, ভোগান্তিতে গ্রামবাসী

বকশীগঞ্জে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্ধ, আবাসিক ভবন গোডাউনে পরিনত, ভোগান্তিতে গ্রামবাসী

তানভীর আহমেদ হীরা:

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার সারমারা উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র বছরে সিংহ ভাগ দিন বন্ধ থাকে। ফলে এই অঞ্চলের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছে।ইউনিয়নের শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত সব বয়সের মানুষ প্রতিনিয়ত ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।এতে বেড়ে যাচ্ছে চিকিৎসা ব্যয়। চিকিৎসা সেবা অনিশ্চিয়তার মধ্যে পরেছে দরিদ্র জনগোষ্টি।দেখা দিয়েছে স্বাস্থ্য অসচেনতা। বকশীগঞ্জ উপজেলার বগারচর ইউনিয়নটি ভারতীয় সিমান্ত ঘেষাঁ একটি জনপথ, এই ইউনিয়নের লোক সংখ্যা প্রায় ৫০ হাজার। অধিকাংশ মানুষ কৃষি পেশার উপর নির্ভরশীল।সড়ক ব্যবস্থা ততটা উন্নত না হলেও গ্রামীন হাট বাজার বেস সরগরম।এখানকার উৎপাদিত কৃষিপন্য দেশের বিভিন্ন জায়গায় চলে যায়।তবে প্রতি বছর ভারতের আসামের উজান থেকে পাহাড়ী ঢল, বন্যার ভয়াবহ রুপ ধারণ করে। আবার কখনো খড়ায় ব্যাপক ফসলের ক্ষতি করে থাকে। ভৌগলিক কারনে এই ইউনিয়টি ঝুকির্পূণ এলাকা।আর্থসামাজিক অবস্থা পিছিয়ে পড়া বৃহৎ জনগোষ্ঠির অন্যতম একটি ইউনিয়ন।এখানকার সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সরকার এই ইউনিয়নে সারমারা উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন।প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকেই প্রায় সময় উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি বন্ধ থাকায় এক দিকে যেমন চিকিৎসা খাতে ব্যয় বৃদ্ধি পাচ্ছে।অন্যদিকে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সিমানায় অটোসিএনজির স্ট্যান্ড, মলমূত্র ত্যাগ,জুয়ার আসর,লাকড়ীর দোকান এবং আবাসিক ভবনে ধান চালের গুদামে পরিণত হয়েছে। বেদখল হয়েছে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জায়গা,সেখানেই গড়ে উঠেছে অসংখ্যা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তৈরি হচ্ছে সিমানা নিয়ে বিরোধ।

চারিদিকে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারনে বাইরে থেকে দেখলে মনেই হবে না, এটি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র এখানে মানুষকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়। আসল ব্যাপারটা হলো উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি এখন নিজেই অসুস্থ হয়ে আছে। স্থানীয় লোকজন জানান, বর্তমানে সপ্তাহে ১ দিন চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়,অর্থাৎ ৩৬৫ দিনের মধ্যে ৫২ দিন খোলা থাকার কথা থাকলেও সেটিও এখন হয় না। বৃহৎ জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সাধারন মানুষ সরকারের কাছে দাবী তুলেছে . দ্রæত সময়ের মধ্য এই প্রতিষ্ঠানটি কে জীবিত করে চিকিৎসা সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌছিয়ে দেয়া হোক। বকশীগঞ্জ ২নং বগারচর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম জানান, উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রটি দীর্র্ঘদিন যাবত বন্ধ থাকায়, স্বাস্থ্য বিভাগের মিটিংয়ে বার বার বলার পরও ডাক্তার আসে না। এতে বৃহতর জনগোষ্ঠির স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে প্রতিনিয়ত। বিশেষ করে করোনা মহামারী সময়ে যেন মানুষ চিকিৎসা পায় তার জন্য সরকারের উচ্চ মহলের প্রতি অনুরোধ জানান । উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ,স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ প্রতাপ নন্দী জানান, জনবল সংকট থাকার কারণে সারমারা উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র চালু রাখা কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। জনসাধারণের কথা চিন্ত্া করেই সপ্তাহে দুই দিন সেবার দেয়া হচ্ছে। জনবল সমস্যার সমাধান হলেই নিয়মিত চিকিৎসা সেবার পরিবেশ তৈরি হবে।এতে করে আবারো স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত হলে মানুষের দুর্ভোগ কমে যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

৬ দফার ভেতরেই নিহিত ছিল স্বাধীনতার এক দফা: প্রধানমন্ত্রী

আ.জা. ডেক্স: ঐতিহাসিক ৬ দফার ভেতরেই স্বাধীনতার এক দফা নিহিত ছিল উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতির...

স্বাস্থ্যবিধি মেনে নেয়া হবে এসএসসি পরীক্ষা: শিক্ষাবোর্ড

আ.জা. ডেক্স: চলমান করোনাভাইরাসের মহামারী পরিস্থিতিতে সব কেন্দ্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে...

১৩ হাজার ৯৮৭ কোটি টাকার সম্পূরক বাজেট পাস

আ.জা. ডেক্স: চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য ১৩ হাজার ৯৮৭ কোটি ২৭ লাখ ৩২ হাজার টাকার সম্পূরক বাজেট সংসদে...

করোনায় আরও ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৯৭০

আ.জা. ডেক্স: করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ ১৯...

Recent Comments