Friday, August 6, 2021
Home জাতীয় বাজার নিয়ন্ত্রণে মহেশখালীতে এলপিজি মাদার টার্মিনাল নির্মাণ করার উদ্যোগ

বাজার নিয়ন্ত্রণে মহেশখালীতে এলপিজি মাদার টার্মিনাল নির্মাণ করার উদ্যোগ

আ.জা. ডেক্স:

এলপিজির বাজারে সরকারের নিয়ন্ত্রণ বাড়াতে মহেশখালীতে প্রথম এলপিজি মাদার টার্মিনাল নির্মাণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) সাথে যৌথ অংশীদারিত্বে দুই বিদেশী কোম্পানি টার্মিনালটি নির্মাণ করতে যাচ্ছে। ৫০ হাজার মেট্টিক টন মজুদ ক্ষমতার ওই টার্মিনালটি উৎপাদনে এলে প্রতি টন এলপিজির পরিবহন ব্যয় ৪০ ডলার পর্যন্ত কমে যাবে। ফলে এলপিজি বাণিজ্যে সরকারি নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি ব্যাপকভাবে দাম কমারও সম্ভাবনা রয়েছে। কারণ দেশে এলপিজির একটি বড় অংশ হচ্ছে পরিবহন ব্যয়। পরিবহন ব্যয় কমে গেলে এলপিজির দামও অনেকটা কমে যাবে। ভারত এলপিজি যে দামে পরিবহন করে বাংলাদেশ তার দ্বিগুণ দামে এলপিজি পরিবহন করে। ফলে ভারতে এলপিজির দাম বাংলাদেশের তুলনায় সব সময় কম থাকে। জ¦ালানি বিভাগ সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, এলপিজির মাদার টার্মিনাল নির্মাণের জন্য শিগগিরই সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করতে যাচ্ছে বিপিসি, জাপানী কোম্পানি মারুবিনি এবং যুক্তরাজ্যের ভিটল পাওয়ারকো। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী এ-সংক্রান্ত জ¦ালানি বিভাগের সারসংক্ষেপ অনুমোদন করেছে। বেসরকারি এলপিজি বটলিং প্ল্যাট নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় এখন সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যর বিভিন্ন দেশ থেকে দুই থেকে তিন হাজার মেট্টিক টন জাহাজীকরণ এলপি গ্যাস আমদানি করে। সিঙ্গাপুর এবং মালয়েশিয়া থেকে ছোট আকারের জাহাজের পরিবহন খরচ পড়ে টন প্রতি ১০০ থেকে ১১০ ডলার। তবে ৩৫ হাজার থেকে ৪০ হাজার মেট্টিক টন ধারণ ক্ষমতার জাহাজ পরিবহন খরচ হবে টন প্রতি সর্বোচ্চ হবে ৬৫ থেকে ৭০ মার্কিন ডলার। অর্থাৎ প্রতি টনে পরিবহন ব্যয় কমে যাবে ৪০ ডলার পর্যন্ত।

সূত্র জানায়, এলপিজির মাদার টার্মিনাল হলে সরকারের হাতে নিয়ন্ত্রণ চলে আসবে। বর্তমানে বেসরকারি উদ্যোক্তারা নিজের ইচ্ছামতো দর নির্ধারণ করে। কিন্তু ভবিষ্যতে সরকারের কাছ থেকে কাঁচামাল কিনলে তা করার কোনো সুযোগ থাকবে না। প্রস্তাবিত এলপিজি টার্মিনালের অপারেশন ক্ষমতা হবে বার্ষিক প্রায় ১০ থেকে ১২ লাখ মেট্টিক টন। টার্মিনালের জেটিতে প্রায় ৪০ হাজার মেট্টিক টন ধারণ ক্ষমতার এলপি গ্যাসবাহী জাহাজ নোঙ্গর করার ব্যবস্থা থাকবে। টার্মিনালের মজুদ ক্ষমতা হব ন্যূনতম ৫০ হাজার মেট্টিক টন। টার্মিনাল থেকে প্রায় এক হাজার ৫০০ থেকে ৪ হাজার মেট্টিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন জাহাজ দিয়ে দেশের এলপি গ্যাস কোম্পানিকে সরবরাহ করার পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমানে দেশে ২৭টি এলপিজি বটলিং প্ল্যাট রয়েছে। তার মধ্যে ২৭টির নিজস্ব জেটি রয়েছে। বাকি ৭টি প্ল্যাট অন্যের জেটির মাধ্যমে এলপিজি আমদানি করে। কিন্তু সবগুলো জেটি ছোট আকারের হওয়াতে এলপিজি বড় জাহাজ নোঙ্গর করতে পারে না। দেশে আরো ৬টি এলপিজি বটলিং প্ল্যাট শিগগিরই উৎপাদনে আসবে। আমদানির সুযোগ-সুবিধাসম্পন্ন এলপিজি বটলিং প্ল্যাটসমূহ মংলায় এবং চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে অবস্থিত।

সূত্র আরো জানায়, নদীর গভীরতা কম থাকায় বেসরকারি এলপিজি কোম্পানিগুলো ছোট ছোট জাহাজে এলপিজি আমদানি করে। ফলে এলপি গ্যাস আমদানি বাবদ পরিবহন খরচ বেড়ে যায়। বড় জাহাজে এলপিজি আমদানি করা হলে এলপি গ্যাস আমদানি বাবদ পরিবহন খরচ কমে আসবে। অথচ দেশে যারা এলপিজি ব্যবসা করে তারা এমন ধরনের বড় প্রকল্প নির্মাণে আগ্রহী নয়। কারণ সেজন্য যে বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ প্রয়োজন হয়তা সংস্থান করা কঠিন।

এদিকে এলপিজি মাদার টার্মিনাল প্রকল্পটি ৩০৫ মিলিয়ন ডলারের হবে। তাতে বিপিসি এবং ভিটল পাওয়ারকোর ৩০ শতাংশ করে ৬০ শতাংশ এবং মারুবিনির ৪০ শতাংশ অংশীদারিত্ব থাকছে। বিল্ট ওন অপারেট (বিওটিটি) ভিত্তিতে প্রকল্পটি নির্মাণ করা হবে। ৩ বছরের মধ্যে প্রকল্পটি নির্মাণ কাজ শেষ হবে। মহেশখালী বিদ্যুৎ জ¦ালানি হাবে ওই প্রকল্পের জন্য জমিও অধিগ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটি আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরুর ১০ বছর পর বিপিসির কাছে শতভাগ শেয়ার হস্তান্তর করবে ভিটল এবং মারুবিনি। অর্থাৎ তখন প্রকল্পটির পুরো মালিকানাই সরকারের হাতে চলে আসবে। এর আগে সরকার দুটি এলএনজি টার্মিনাল নির্মাণ করলেও তাতে সরকারের কোন অংশীদারিত্ব নেই। সরকার শুধু নির্দিষ্ট পরিমাণ চার্জ দিয়ে সেখান থেকে এলএনজিকে গ্যাসে রূপান্তর করে।

এ প্রসঙ্গে জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানান, এলপিজির একটি অংশ সব সময় সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। সরকার এলপিজি বিশ্ববাজার থেকে নির্দিষ্ট দামে কিনবে। তারপর পরিবহন ব্যয় এবং টার্মিনাল চার্জ যোগ করে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের কাছে বিক্রি করবে। ফলে এলপিজির দর বৃদ্ধির সুযোগ থাকবে না। এখন এলপিজির দাম নিয়ন্ত্রণের কোনো ব্যবস্থাই সরকারের হাতে নেই। আশা করা যায়, একবার টার্মিনাল হয়ে গেলে ভোক্তাদেরকে স্বস্তি দেয়া যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

টিকা না নিয়ে বের হলে শাস্তির সিদ্ধান্ত হয়নি: তথ্যমন্ত্রী

আ.জা. ডেক্স: করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে আগামী ১১ আগস্ট থেকে ১৮ বছরের বেশি বয়সী কোনো নাগরিক টিকা নেয়া ছাড়া বাইরে...

টিকা ছাড়া চলাফেরায় শাস্তির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

আ.জা. ডেক্স: আগামী ১১ আগস্ট থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিন নেয়া ছাড়া ১৮ বছরের ঊর্ধ্বের কোনো ব্যক্তি বাইরে চলাফেরার...

‘জিনের বাদশা’ সেজে ৬০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়া চক্রের ৩ সদস্য আটক

আ.জা. ডেক্স: চট্টগ্রামের এক নারীর স্বামী বিদেশ থাকেন। তার দুরারোগ্য ব্যাধি ছিল। এই রোগ থেকে মুক্তির আশায় টেলিভিশনের...

আইটি পণ্য সরবরাহ বিধিনিষেধের আওতার বাইরে রাখার নির্দেশ

আ.জা. ডেক্স: তথ্যপ্রযুক্তি খাতকে জরুরি সেবা খাতের আওতায় আনা হয়েছে জানিয়ে চলমান বিধিনিষেধে কম্পিউটার হার্ডওয়্যারসহ আইটি পণ্য সরবরাহে...

Recent Comments