Sunday, June 26, 2022
Homeদেশজুড়েজেলার খবরমাদরাসায় যাওয়ার কথা বলে নিখোঁজ চার বোন, ৬ দিনেও মেলেনি সন্ধান

মাদরাসায় যাওয়ার কথা বলে নিখোঁজ চার বোন, ৬ দিনেও মেলেনি সন্ধান

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে মাদরাসায় যাওয়ার কথা বলে অজানা উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়েছে চার বোন। সন্ধান পেতে থানায় করা হয়েছে সাধারণ ডায়েরি (জিডি)। তবে নিখোঁজের ছয় দিন পেরিয়ে গেলেও মেলেনি তাদের খোঁজ। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এক সঙ্গে চার সন্তানকে হারিয়ে দিশেহারা তাদের মা-বাবা ও স্বজনরা।

নিখোঁজরা হলো- উপজেলার একই ইউনিয়নের কালেম গ্রামের মজিবুল হকের বড় মেয়ে নাঙ্গলকোট আফসারুল উলুম কামিল মাদরাসার আলিম প্রথম বর্ষের ছাত্রী তাসনিম জাহান (১৮), একই প্রতিষ্ঠানের দশম শ্রেণীর ছাত্রী মারজাহান (১৭), ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী তাজিন সুলতানা (১২) ও স্থানীয় নারুয়া তালিমুল কোরআন মডেল মাদরাসার শিশু শ্রেণীর ছাত্রী মাইশা আক্তার (৭)।


জিডি সূত্রে জানা যায়, ২৬ মে সকালে চার বোর তাদের নানার বাড়ি মৌকরা ইউনিয়নের নারুয়া গ্রাম থেকে মাদরাসায় যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়। মাদরাসা ছুটির পরও তারা বাড়িতে ফিরে না আসায় আত্মীয়-স্বজনসহ বিভিন্ন জায়গায় খুঁজেও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে নিখোঁজ চার বোনের মা মাসুদা আক্তার বলেন, ‘২৫ মে তাদের বাবা তাসনিম, মারজাহান ও তাজিনকে বকাঝকা করেন। বিকেলে তিনি বোন তাদের নানার বাড়িতে চলে যায়। সেখানে থেকেই আমার ছোট মেয়ে মাইশা স্থানীয় একটি মাদরাসায় লেখাপড়া করে। পরদিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তাকে নিয়ে চার বোন মাদরাসার কথা বলে নানার বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েন। এরপর থেকে তাদের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে না। আমার সন্তানদের ফেরত চাই।’

তাদের মামা এ বি এম ছিদ্দিকুর রহমান  বলেন, ‘আমার ভগ্নিপতি মজিবুল হক গত ১৮ বছর প্রবাস জীবন অতিবাহিত করেন। দেশে এসে তিনি ব্যবসার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন মাধ্যমে বিনিয়োগ করে ক্ষতিগ্রস্ত হন। এ নিয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন। এছাড়া তিনি ডায়াবেটিস, প্রেশার ও হার্টের সমস্যা থাকার কারণে বিভিন্ন সময়ে হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। ওই সময় আমার বোন-ভাগনিদের উচ্চস্বরে কথা বলতেন। গত বুধবারও ভাগনিদের বকাঝকা করেন। এ নিয়ে তারা অভিমান করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দীর্ঘ ছয় দিন তাদের না পেয়ে বোন ও ভগ্নিপতি দুজনই দিশে হারা হয়ে পড়েছে। ভাগনিদের উদ্ধারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’


এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক হোসেন  বলেন, ‘অভিযোগ পাওয়ার পর থেকেই গুরুত্ব দিয়েই বিষয়টি তদন্ত করছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments