Friday, June 14, 2024
Homeখেলাধুলামেসির হাতে অষ্টম ব্যালন ডি’অর, যা বললেন এমবাপে

মেসির হাতে অষ্টম ব্যালন ডি’অর, যা বললেন এমবাপে

রেকর্ড অষ্টমবারের মতো ব্যালন ডি’অর জিতেছেন লিওনেল মেসি। ফুটবলের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ সম্মানজনক এই পুরস্কার জেতার দৌড়ে পেছনে ফেলেছেন ম্যানচেস্টার সিটির নরওয়েজিয়ান তারকা আর্লিং হালান্ড এবং পিএসজির ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপেকে। যে কীর্তিতে মেসি আগেই ছিলেন অনন্য, এবার সেটাকেই বাড়িয়ে নিলেন আরও একধাপ! 

প্যারিসে মেসিময় আরেকটা রাতে আর্জেন্টাইন মহাতারকাকে অভিনন্দন বার্তা দিয়েছেন  এক সময়ের সতীর্থ পিএসজির ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপে। অষ্টম ব্যালন ডি’অর হাতে মেসির ছবি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে শেয়ার করে এমবাপে লিখেছেন, ‘অভিনন্দন লিও (মেসি) অ্যাওয়ার্ডের জন্য। এটা তোমারই প্রাপ্য।’

লড়াইয়ে এগিয়ে ছিলেন মূলত দুজন, যেখানে শেষ পর্যন্ত হালান্ডকে পেছনে ফেলে ব্যালন ডি’অর জিতেছেন মেসি। আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ জিতিয়ে বর্ষসেরার পুরস্কারটি আরও একবার জিতে নিলেন ফুটবলের এই মহাতারকা। অন্যদিকে, ব্যক্তিগত পর্যায়ে দারুণ একটি মৌসুম কাটালেও তুলনামূলকভাবে ব্যালন ড ‘অর জয়ের দৌড়ে এমবাপে খানিকটা পিছিয়েই ছিলেন। যদিও মাস কয়েক আগে ফরাসি এই ফরোয়ার্ড আশা প্রকাশ করে বলেছিলেন, তিনিই পরবর্তী ব্যালন ডি অরের যোগ্য দাবিদার।

এমবাপের ইনস্টাগ্রাম পোস্ট।

রেকর্ড গড়ার রাতে নিকটতম দুই প্রতিদ্বন্দ্বী হালান্ড ও এমবাপেকেও স্মরণ করেছেন মেসি। এক বার্তায় বলেন, একদিন তারাও (হালান্ড, এমবাপে) ব্যালন ডি’অর জিতবে। হালান্ডকে নিয়ে আরও বলেন, ‘আর্লিং (হালান্ড) এটা ডিজার্ভ করে। প্রিমিয়ার লিগ, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সবকিছু জিতেছে সে। সবখানেই টপস্কোরার ছিল। এই পুরস্কার তারও। আমি নিশ্চিত আগামী মৌসুমে সে জিতবে এটি।’

গেল মৌসুমে দীর্ঘ তিন যুগ পর আর্জেন্টিনাকে ফিফা বিশ্বকাপের শিরোপা এনে দিতে মেসি সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে একমাত্র অপূর্ণতা ঘোচানোর পথে নামের পাশে সাত গোল নিয়ে আর একাধিক ব্যক্তিগত রেকর্ড গড়েন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। শুধু তাই না, টুর্নামেন্ট শেষে ফুটবল ইতিহাসের একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে দ্বিতীয়বারের মতো গোল্ডেন বলও জিতে নিয়েছিলেন মেসি। 

ফ্রান্স ফুটবল ম্যাগাজিন আগেই জানিয়েছিল এবারের বিজয়ী নির্ধারণে বছর নয়, আমলে নেওয়া হবে মৌসুম। এরপরই মূলত ব্যালন হয়ে যায় এক ঘোড়ার দৌড়! মাঝে হালান্ডের ট্রেবল জয় কিছুটা চ্যালেঞ্জ জানালেও শেষ পর্যন্ত পার্থক্য নির্ণয় করে দিয়েছে সেই বিশ্বকাপটাই। 

ব্যালন ডি’অরের জন্য বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে ২০২২ সালের ১ আগস্ট থেকে ২০২৩ সালের ৩১ জুলাই সময়কে। এ সময়ে আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপ জেতার পাশাপাশি পিএসজির হয়ে ফ্রেঞ্চ লিগ জিতেছেন মেসি। এমনকী নতুন ক্লাব ইন্টার মায়ামির হয়েও দারুণ শুরু করেছিলেন। 

Most Popular

Recent Comments