Monday, June 24, 2024
Homeআন্তর্জাতিকরাশিয়াকে শক্তি দেখাতে নিজেদের দ্বিতীয় বৃহৎ মহড়ার ঘোষণা ন্যাটোর

রাশিয়াকে শক্তি দেখাতে নিজেদের দ্বিতীয় বৃহৎ মহড়ার ঘোষণা ন্যাটোর

প্রধান প্রতিপক্ষ রাশিয়াকে শক্তি-সামর্থ্য প্রদর্শন করতে নিজেদের ইতিহাসের দ্বিতীয় বৃহত্তম সামরিক মহড়ার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার ইউরোপীয় মিত্রদের সামরিক জোট নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অ্যালায়েন্স (ন্যাটো)। আগামী মে মাসে হবে সেই মহড়া।


জোটের সদস্যরাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে দুই দিন বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে অবস্থিত ন্যাটের সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের উদ্দেশে এই ঘোষণা দেন এই জোটের শীর্ষ কমান্ডার ক্রিস ক্যাভোলি। ঘোষণায় তিনি বলেন, আর ৫ মাস পর অনুষ্ঠিতব্য সেই মহড়ায় অংশ নেবে অন্তত ৯০ হাজার সেনা, ৫০টিরও বেশি যুদ্ধজাহাজ (এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার এবং ডেস্ট্রয়ার) ৮০টিরও বেশি যুদ্ধবিমান, হেলিকপ্টার এবং ড্রোন, ১ হাজার ১০০টি সাঁজোয়া যান, ১৩৩টি ট্যাংক এবং ৫৩৩টি ইনফ্যান্ট্রি যুদ্ধযান।

এর আগে শীতল যুদ্ধের শেষ পর্যায়ে, ১৯৮৮ সালে ১ লাখ ২৫ হাজার সেনাকে নিয়ে নিজেদের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সামরিক মহড়া করেছিল ন্যাটো। তারপর ২০১৮ সালে ফের বড় আকারের মহড়া করে এই সামরিক জোটটি। সেই মহড়ায় অংশ নিয়েছিলেন ৫০ হাজার সেনা।


সেই হিসেবে আসন্ন এই মহড়া ন্যাটোর এযাবৎকালের ইতিহাসের দ্বিতীয় বৃহত্তম। ১৯৪৯ সালের ১৪ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে গঠন করা হয়েছিল ন্যাটো। শুরুর দিকে এই জোটের সদস্য ছিল যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্র ১১টি ইউরোপীয় রাষ্ট্র। মূলত তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের সামরিক প্রভাব মোকাবিলা করতেই গঠিত হয়েছিল এই জোট।  

বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য সরাসরি রাশিয়ার নাম উল্লেখ করেননি ক্যাভোলি। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের ঐক্য, শক্তি এবং পরস্পরকে রক্ষা করার যে দৃঢ় অঙ্গীকার— বিশ্ববাসীকে তা আরও একবার জানান দেওয়াই এই মহড়ার উদ্দেশ্য।’


তবে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা এক প্রকার নিশ্চিত যে ‘স্টিডফাস্ট ডিফেন্ডার ২০২৪’ নামের এই মহড়াটির একমাত্র উদ্দেশ্য রাশিয়াকে নিজেদের শক্তি-সামর্থ্যের প্রদর্শন। কারণ এই মহড়ার একটি উল্লেখ যোগ্য অংশই অনুষ্ঠিত হবে ইউরোপের বাল্টিক সাগর ও তার আশপাশের দেশগুলো। বাল্টিক অঞ্চলের দেশগুলো বর্তমানে সম্ভাব্য রুশ সামরিক অভিযানের ঝুঁকিতে রয়েছে।

ব্রাসেলসে ন্যাটোর মহড়া বিষয়ক বৈঠকের নথিতে এ প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, ‘স্টিডফাফাস্ট ডিফেন্ডার ২০২৪ মহড়া আসলে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপের নিরাপত্তার রক্ষার ক্ষেত্রে ন্যাটোর পারদর্শীতা ও ক্ষিপ্রতা যাচাইয়ের একটি পরীক্ষা।’

এই মহড়ায় অংশ নেবে সুইডেনও। এই রাষ্ট্রটি এখনও ন্যাটোর পূর্ণকালীন সদস্যপদ পায়নি। এছাড়া এই মহড়া শেষে পোল্যান্ডে প্রথমবারের মতো ন্যাটোর ঘাঁটি স্থাপন করা হবে।

আগামী মে মাসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ‘স্টিডফাফাস্ট ডিফেন্ডার ২০২৪’ মহড়াটি চলবে বলে বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন ক্রিস ক্যাভোলি।

রয়টার্স/ আল জাজিরা

Most Popular

Recent Comments