Friday, January 27, 2023
Homeদেশজুড়েজেলার খবররৌমারীতে ভিডব্লিউবি’র তালিকায় অনিয়মের অভিযোগ ৩ ইউপি সদস্যের

রৌমারীতে ভিডব্লিউবি’র তালিকায় অনিয়মের অভিযোগ ৩ ইউপি সদস্যের

রৌমারী সংবাদদাতা: ২০২৩-২০২৪ চক্রের ভারনারেবল উইমেন বেনিফিট (ভিডব্লিউবি) প্রকল্পের ইউনিয়নের বরাদ্দের কার্ডের নামের তালিকা প্রণয়নে সমন্বয়সভা ও রেজুলেশন না করা। ইউপি সদস্যদের নামের তালিকা করতে না দেয়া। সেচ্ছাচারিতা নিজ ক্ষমতা বলে স্বজনপ্রীতি ও নানা অনিয়মের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলীর বিরুদ্ধে। ৪ জানুয়ারী বুধবার এ ঘটনা ঘটেছে যাদুরচর ইউনিয়নে।
৪ জানুয়ারী বুধবার অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে প্রেরণে পাওয়া গেছে, ২০২৩-২০২৪ চক্রের ভিডব্লিউবি’র উপজেলায় মোট ৩ হাজার ২৫৩টি নামের মধ্যে যাদুরচর ইউনিয়নে বরাদ্দকৃত ৫৫০ নামের স্থলে ৩৫৮ টি নাম অত্র ইউনিয়নে বরাদ্দ দেয়া হয়। বরাদ্দকৃত নাম ইউনিয়ন পরিষদে সকল সদস্যদের সমন্বনে সভা ও রেজুলেশন না করে সরকারি নিয়মনীতি লঙ্ঘন করে ২ নং ওয়ার্ড মাহমুদুর রহমান মিলন, ৮ নং ওয়ার্ড ময়নাল হক ও ৯ নং ওয়ার্ড নজরুল ইসলামকে নামের তালিকা থেকে বাদ দিয়ে ব্যাক্তিগতভাবে ইচ্ছামত নাম গুলি বন্টন করেন চেয়ারম্যান সরবেশ আলী। একক ভাবে নাম দেওয়ার প্রতিবাদ করলে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে নামের তালিকা থেকে বাদ দিয়ে দেন। এতে আমাদের এলাকার সাধারণ জনগণ ও ভিডব্লিডির প্রকৃত ব্যক্তিরা সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়।
এ বিষয়ে অভিযোগকারি ইউপি সদস্যগণ বলেন, ২০২৩-২০২৪ চক্রের ভারনারেবল উইমেন বেনিফিট (ভিডব্লিউবি) প্রকল্পের ইউনিয়নের বরাদ্দের কার্ডের নামের তালিকা প্রণয়নে সমন্বয়সভা ও রেজুলেশন না করা। ইউপি সদস্যদের নামের তালিকা করতে না দেয়া। সেচ্ছাচারিতা নিজ ক্ষমতা বলে স্বজনপ্রীতি ও নানা অনিয়ম করেছে ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলী। আমরা তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি বিভিন্ন দপ্তরে। এতে আমাদের এলাকার সাধারণ জনগণ ও ভিডব্লিডির প্রকৃত ব্যক্তিরা সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়।
ইউপি সচিব মজিবুর রহমানকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, আমার কাছে তালিকা দিয়েছে। তবে তালিকা পাঠানোর পর। সদস্যরা তালিকা দিতে দেরি করেছে, তাদের সাথে সমন্বয় সভা ও রেজুলেশন করেনি চেয়ারম্যান। এ জন্য ইউপি সদস্যরা ক্ষিপ্ত।
এ অভিযোগ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান সরবেশ আলীকে মোবাইল ফোনে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, আমি বারবার তাদের কাছে নামের তালিকা চেয়েছি। তারা দিতে দেরি করেছে। অফিস তো দেরি করতে চায়নি। বাধ্যগত আমি তালিকা জমা দিয়েছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার পূবণ আখতার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্তপূবর্ক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, বিষয়টি নিয়ে প্রতিমন্ত্রী মহোদয় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে বসে ব্যবস্থা করবো। যদি না হয়, প্রয়োজনে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করবো।
এবিষয়ে জেলা মহিলা বিষয়ক উপ-পরিচালক ও রৌমারী উপজেলা মহিলা বিষয়ক দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জেবুন নেছার সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি জানান, আমি অভিযোগ পেয়েছি, জেলা মাসিক সভায় আলোচনা করে ব্যবস্থা নেবো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

Recent Comments