Thursday, April 25, 2024
Homeদেশজুড়েজেলার খবররৌমারীতে সিএনজি স্টান্ডের চাঁদা বন্ধের পর আবারও চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

রৌমারীতে সিএনজি স্টান্ডের চাঁদা বন্ধের পর আবারও চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

রৌমারী সংবাদদাতা : কুড়িগ্রামের রৌমারীতে নব নির্বাচিত এমপি এ্যাডঃ বিপ্লব হাসান পলাশের নির্দেশে সিএনজি স্ট্যান্ডের চাঁদা বন্ধ করে দিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইদুল ইসলাম। এতে উপজেলার প্রায় শতাধিক সিএনজি, পিকআপ ভ্যান ও নসিমনসহ অন্যান যানবাহন থেকে চাঁদা (জিপি) আদায় বন্ধ হয়ে যাওয়ার ঘোষণায় ক্ষুদ্র যানবাহন চালক ও তাদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে সস্তির ফিরে আসে।
জানা গেছে, রৌমারী সদর, বড়াইকান্দি, দাঁতভাঙ্গা, চরশৌলমারী, কর্তিমারি, সায়দাবাদ, রাজিবপুর বটতলাসহ প্রায় শতাধিক সিএনজি পিকআপ ভ্যান ও নসিমন নামের যানবাহনের কাছ থেকে বিগত ৫ বছর ধরে সাবেক সংসদ সদস্য, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে তার লোকজনরা সিএনজি স্ট্যান্ডে মাসে লাখ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করতো।
স্থানীয়রা জানায়, সিএনজি স্ট্যান্ডের চাঁদাবাজির কারণে অনেকটাই অতিষ্ঠ ছিল খেটে খাওয়া ক্ষুদ্র যানবাহনের চালক এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা। ফলে জাতীয় সংসদ সদস্যকে চাঁদা নেয়ার বিষয়ে অভিযোগ দিলে তাৎক্ষণিক ভাবে চাঁদা বন্ধের আশ্বাস দেন। পরে এ্যাডঃ বিপ্লব হাসান পলাশ গত ৪ ফেব্রুয়ারী উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইদুল ইসলামের মাধ্যমে সিএনজি স্ট্যান্ডের সকল জিপি নামে চাঁদা আদায় বন্ধ করে দেন। এতে অসহায় দরীদ্র খেটে খাওয়া চালকদের মাঝে স্বস্তির ফিরে আসে।
বিধিবাম, ২০ দিন যেতে না যেতেই বন্ধ করে দেয়া সিএনজি স্টান্ড থেকে আবারও উপজেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইদুল ইসলাম ট্রাফিক সার্জেন্ট ইনচার্জকে ম্যানেজ করার জন্য ২৫ ফেব্রুয়ারী রবিবার জিএস গাড়ির চালক জাবেদের মাধ্যমে সিংহ প্রতিকের রশিদ দিয়ে চাঁদা চাওয়া হয়। বিষয়টি জানা জানি হলে ট্রাফিক সার্জেন্ট ইনচার্জ আব্দুল হাই জাবেদকে সিএনজি স্টান্ড থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যান। পরে জাবেদকে ছেড়ে দেওয়া হয়।
সিএনজি চালক শেরপুরের আজাদ, শেরপুরের কাজল, জামালপুরের কাজল, শেরপুরের শাকিল, শাহিন, লিটনসহ জানায়, চাঁদাবাজরা দৈনিক, মাসিক ও বার্ষিক বিভিন্ন হারে আমাদের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করতো। আমরা এই চাঁদাবাজদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিলাম। চাঁদা দিতে রাজি না হলে অসংখ্য চালককে বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করেছেন তারা। আমরা পেটের দায়ে সিএনজি চালিয়ে স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে বেচে থাকি। চুরি করতে তো পারি না।
এ বিষয়ে রৌমারী রাজিবপুর দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট ইনচার্জ আব্দুল হাইকে মোবাইল ফোনে কথা বলতে চাইলে তিনি পাশ কাটিয়ে যান। এ বিষয়ে নব নির্বাচিত এমপি এ্যাডঃ বিপ্লব হাসান পলাশ বলেন, সিএনজি স্টান্ডে চাঁদা নেয়া বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে আবার যদি কেহ চাঁদা নেয়ার চেষ্টা করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Most Popular

Recent Comments