Saturday, November 28, 2020
Home জাতীয় সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী আর নেই

সাবেক ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী আর নেই

আ.জা. ডেক্স:

আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম অভিযুক্ত, নবম জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার কর্নেল (অব.) শওকত আলী আর নেই। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) মৃত্যুবরণ করেন তিনি। সংসদ সচিবালয়ের গণসংযোগ শাখার পরিচালক মো. তারিক মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কিডনি, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপসহ বার্ধক্যজনিত সমস্যায় তিনি ভুগছিলেন বলে জানা গেছে। ২৯ অক্টোবর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সাবেক ডেপুটি স্পিকার কর্নেল শওকত আলী শরীয়তপুর-২ আসন থেকে ৫ পাঁচবার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ব্যক্তিজীবনে তিনি দুই ছেলে ও এক কন্যার জনক। পাকিস্তান আমলে ১৯৬৯ সালে বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে যে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা করা হয়েছিল, তাতে শওকত আলীকেও আসামি করা হয়। তিনি মুক্তিসংহতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান এবং ৭১ ফাউন্ডেশনের প্রধান উপদেষ্টা। গতকাল সোমবার বাদ মাগরিব তাঁর নামাজে জানাযা বায়তুল মোকাররম মসজিদে অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে বিকাল সাড়ে ৩টায় শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তার মৃতদেহ জাতীয় শহীদ মিনারে রাখা হয়। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টায় সশস্ত্র বাহিনীর হেলিকপ্টারে মৃতদেহ শরীয়তপুর জেলার নড়িয়ায় নেয়া হবে। সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য নড়িয়া শহীদ মিনারে রাখা হবে মৃতদেহ। বাদ জোহর নড়িয়া বি এল উচ্চ বিদ্যালয়ে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অবঃ) শওকত আলী।

রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পিকারের শ্রদ্ধা: জাতীয় বীর, সাবেক ডেপুটি স্পিকার আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম আসামি কর্নেল (অব.) শওকত আলীর মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং জাতীয় সংসদের স্পিকার। গতকাল সোমবার শহীদ মিনারে শওকত আলীর মরদেহে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শ্রদ্ধা নিবেদনের পূর্বে জাতির এই কৃতী সন্তানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। গার্ড অব অনার প্রদান শেষে রাষ্ট্রপতির পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতির সহকারি সামরিক সচিব কর্নেল রাজু আহমেদ। এরপর প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন প্রধানমন্ত্রীর সরকারি সামরিক সচিব লেফটেন্যান্ট কর্নেল রাজিব আহমেদ। স্পিকারের পক্ষে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন উইং কমান্ডার সাঈদ মো. ওবায়দুল্লাহ। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী এবং স্পিকারের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কর্নেল শওকত আলীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

রাষ্ট্রপতির শোক: এদিকে, জাতীয় সংসদের সাবেক ডেপুটি স্পিকার, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার অন্যতম অভিযুক্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অবঃ) শওকত আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। বঙ্গভবন প্রেস উইং জানায়, রাষ্ট্রপতি শোকবার্তায় বলেন, মরহুম শওকত আলী বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতি অবিচল থেকে আজীবন স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিকাশে কাজ করে গেছেন। তিনি একজন সামরিক কর্মকর্তা হওয়া সত্তে¡ও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশমাতৃকার স্বাধীনতার জন্য যে সাহসী ভ‚মিকা রেখেছেন, তা অতুলনীয়। রাষ্ট্রপতি বলেন, তার মৃত্যুতে দেশ একজন বরেণ্য বীর মুক্তিযোদ্ধা, স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের সম্মুখ যোদ্ধা এবং সমাজসেবক হারালো। তিনি বলেন, মরহুম শওকত আলীর অবদান জাঁতি শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। রাষ্ট্রপতি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর শোক: জাতীয় সংসদের সাবেক ডেপুটি স্পিকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) শওকত আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস উইং থেকে পাঠানো এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৬৯ সালে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠী কর্তৃক রাষ্ট্র বনাম শেখ মুজিবুর রহমান ও আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় শওকত আলীকে ২৬ নম্বর আসামি করা হয় এবং বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে একসঙ্গে কারাবাস করার ঐতিহাসিক ঘটনাগুলো অত্যন্ত শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম, মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং সংসদীয় গণতন্ত্র শক্তিশালীকরণে শওকত আলীর অবদান জাঁতি সবসময় শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। দেশ এক প্রবীণ জননেতাকে হারালো, আমি হারালাম বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন বিশ্বস্ত সহকর্মীকে। মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান প্রধানমন্ত্রী।

বিভিন্ন মহলের শোক: বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) শওকত আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট আরও অনেকে। গতকাল সোমবার তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন, কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, ভ‚মিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইমরান আহমেদ, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, মৎস্য ও প্রণীসম্পদমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান পৃথক শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান। এক শোক বার্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, অত্যন্ত সজ্জন এবং দৃঢ় চিত্তের অধিকারী শওকত আলীর সাথে আমার ঘনিষ্ঠতা ছিল বহুদিনের। মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং সংসদীয় গণতন্ত্র শক্তিশালীকরণে শওকত আলীর অবদান বাঙালি জাঁতি চিরকাল স্মরণ রাখবে। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এক শোক বার্তায় ব্যক্তিগতভাবে ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পক্ষ থেকে মরহুমের পরিবার-পরিজন, সন্তানসহ সকলকে গভীর সমবেদনা জানান। মন্ত্রীরা বলেন, বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর কর্নেল (অব.) শওকত আলী একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য ভ‚মিকা রেখেছিলেন। আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলায় বঙ্গবন্ধুর সাথে ৩৫ জন আসামির মধ্যে কর্নেল (অব.) শওকত আলীকে ২৬ নম্বর আসামি করা হয়েছিল। অসামান্য রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ও মেধায় দেশে সংসদীয় গণতন্ত্র শক্তিশালী করতেও কর্নেল (অব.) শওকত আলী কার্যকর অবদান রাখেন। এ ছাড়া মহান মুক্তিযুদ্ধে তার অবদান জাতির কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। এছাড়া নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরিফ আহমেদ, সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ানসহ জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ এবং জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান জিএম কাদের মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। তারা বলেন, কর্নেল (অব.) শওকত আলীর মতো একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ ও খাঁটি দেশপ্রেমিকের মৃত্যুতে দেশ ও জাতির অপূরণীয় ক্ষতি হল। ডেপুটি স্পিকার হিসেবে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন কর্নেল (অবঃ) শওকত আলী। তার লেখা ‘সত্য মামলা আগরতলা’, ‘কারাগারের ডায়েরী’, ‘বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রাম ও আমার কিছু কথা’ এবং ‘গণ পরিষদ থেকে নবম সংসদ’ তথ্যবহুল বইগুলো ইতিহাসের স্বাক্ষী হয়ে থাকবে। বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদের মৃত্যুতে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে, তা সহজে পূরণ হওয়ার নয়। এদিকে শওকত আলীর মৃত্যুতে গভীর দুঃখ ও শোক প্রকাশ করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Most Popular

শেরপুর পৌরসভা যাদুঘর উদ্বোধন

শেরপুর প্রতিনিধি: দের শত বছরের পুরোনো ঐতিহ্যবাহী ও প্রচীণ শেরপুর পৌরসভার আয়োজনে ‘শেরপুর পৌরসভা যাদুঘর’ উদ্বোধন করা হয়েছে।২৫ নভেম্বর...

ভ্যাকসিন আনার ব্যাপারে সরকার প্রস্তুতি নিয়েছে: কাদের

আ.জা. ডেক্স: আন্তর্জাতিক বাজারে ভ্যাকসিন আসা মাত্রই বাংলাদেশের জনগণ যাতে সহজেই পায় সে ব্যাপারে সরকার সব প্রস্তুতি গ্রহণ...

চলে গেলেন নাট্য ব্যক্তিত্ব আলী যাকের

আ.জা. ডেক্স: বাংলাদেশের নন্দিত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আলী যাকের চলে গেলেন না ফেরার দেশে। গতকাল শুক্রবার ভোর ৬টা ৪০...

স্থানীয় দালাল ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় রোহিঙ্গারা ভুয়া পরিচয়ে পাসপোর্ট করতে মরিয়া

আ.জা. ডেক্স: স্থানীয় দালাল ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় মিয়ানমারের সহিংসতায় বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা ভুয়া পরিচয়ে পাসপোর্ট করতে মরিয়া...

Recent Comments