Monday, March 4, 2024
Homeআন্তর্জাতিকসিরিয়ার আলেপ্পো-দামেস্ক বিমানবন্দরে ইসরায়েলের হামলা, নিহত ২

সিরিয়ার আলেপ্পো-দামেস্ক বিমানবন্দরে ইসরায়েলের হামলা, নিহত ২

সিরিয়ার দামেস্ক ও আলেপ্পোর প্রধান দুই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বোমা হামলা চালিয়েছে হামাসের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত ইসরায়েল। এতে দামেস্কে বিমানবন্দরের অন্তত দুই কর্মী নিহত হয়েছেন। ইসরায়েলি হামলায় উভয় বিমানবন্দরের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। রোববার ভোরের দিকে সিরিয়ার এই দুই বিমানবন্দরে ইসরায়েলি হামলায় প্রাণহানি ও ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটেছে বলে দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর এক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রোববার ভোরে সিরিয়ার দামেস্ক বিমানবন্দর লক্ষ্য করে ইসরায়েলি বোমাবর্ষণে কমপক্ষে দুই কর্মী নিহত হয়েছেন। নিহত দুজনই বিমানবন্দরে আবহাওয়া বিভাগের অফিসে কর্মরত ছিলেন।

 
তবে সিরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা সানা বলছে, প্রধান দুই বিমানবন্দর লক্ষ্য করে ইসরায়েলি বিমান হামলা হয়েছে। এতে দামেস্ক বিমানবন্দরে একজন বেসামরিক কর্মী নিহত এবং অপর একজন আহত হয়েছেন। রানওয়েতে ক্ষয়ক্ষতি হওয়ায় বিমানবন্দরের কার্যক্রম কিছু সময়ের জন্য বন্ধ হয়ে যায় বলে দেশটির সামরিক একটি সূত্র জানিয়েছে।

সিরিয়ার পরিবহন মন্ত্রণালয় বলেছে, বন্দর নগরী লাতাকিয়ার বিমানবন্দরে ফ্লাইটগুলোকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। অতীতেও সিরিয়ার এই দুই বিমানবন্দরে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী বিমান হামলা চালিয়েছিল। তবে রোববারের হামলার পর উভয় বিমানবন্দরে বিমানের উড্ডয়ন ও অবতরণ বন্ধ করে দেওয়া হয়।

গত ৭ অক্টোবর অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী হামাসের সাথে ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত সিরিয়ার দামেস্ক এবং আলেপ্পো বিমানবন্দরে দ্বিতীয়বারের মতো হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। গাজায় ইসরায়েলি বিমান হামলায় এখন পর্যন্ত প্রায় ৪ হাজার ৪০০ মানুষের প্রাণ গেছে; যাদের অনেকেই নারী এবং শিশু।

এর আগে গত ১২ অক্টোবর সিরিয়ার আলেপ্পো এবং দামেস্ক বিমানবন্দরে একযোগে হামলা চালায় ইসরায়েল। ওই সময় ইসরায়েলি বিমান হামলায় দুই বিমানবন্দরের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে পড়েছিল বলে জানায় সিরিয়া।

চলতি মাসের শুরুর দিকে সিরিয়ার হোমস প্রদেশের একটি সামরিক কলেজে ড্রোন হামলা হয়েছিল। স্থানীয় একটি যুদ্ধ পর্যবেক্ষক গোষ্ঠীর তথ্য অনুযায়ী, হোমসে ড্রোন হামলায় শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

আলেপ্পো এবং দামেস্ক বিমানবন্দর ব্যবহার করে সিরিয়ায় ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোকে তেহরান সামরিক রশদ সরবরাহ করতে পারে, এমন আশঙ্কায় ইসরায়েল বিমানবন্দর দুটিকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে। ইসরায়েলের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ইরান সামরিক সরঞ্জাম সরবরাহ এবং তা ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ব্যবহার হতে পারে, এমন উদ্বেগ থেকে বিমানবন্দর দুটিতে হামলা চালিয়েছে।

হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধ ওই অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে বারবার সতর্ক করে দিয়ে আসছে ইরান। গাজায় ইসরায়েলি হামলা বন্ধ না হলে ইরান-সমর্থিত মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলো প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ নিতে পারে বলে ইরান জানিয়েছে।

সূত্র: রয়টার্স, আলজাজিরা।

Most Popular

Recent Comments